• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর, ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯
প্রকাশিত: মে ২৮, ২০২১, ০৭:৪৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২৮, ২০২১, ০১:৪৯ পিএম

শ্রমিক নিহতের ঘটনায় ক্ষতিপূরণ চেয়ে জাবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

শ্রমিক নিহতের ঘটনায় ক্ষতিপূরণ চেয়ে জাবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিক নিহতের ঘটনায় বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোট ও প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনের নেতা কর্মীরা।

শুক্রবার (২৮ মে) বিকেল পাঁচটায় নির্মাণাধীন হলের সামনে এ কর্মসূচি পালন করেন তারা।

এ সময় শ্রমিক নিহতের ঘটনাকে খুন হিসেবে অভিহিত করেন তারা। এছাড়া কর্মরত শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত না করে ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করতে বাধ্য করার অভিযোগ তুলেন তারা। ইমারত নির্মাণে নিরাপত্তা বেস্টনি না থাকার ফলে দুর্ঘটনার শিকার শ্রমিক নিহতকে 'খুন' হিসেবে অভিহিত করে এর সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান তারা।

এছাড়া মানববন্ধনে তিন দফা দাবি উত্থাপন করা হয়। এর মধ্যে নিহত শ্রমিকের পরিবারকে তার আজীবন আয়ের সমপরিমাণ ক্ষতিপূরণ দেওয়া। নিহত শ্রমিকের পরিবারের একজন কর্মক্ষম ব্যক্তির কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা এবং সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষিদের শাস্তি নিশ্চিত করা।

মানববন্ধনে জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি দীপঙ্কর চক্রবর্তী বলেন, 'গতকাল যে শ্রমিক নিহত হয়েছে তাকে আসলে হত্যা করা হয়েছে। এই নির্মাণ প্রকল্পের শুরু থেকে নানা বিতর্ক, দুর্নীতি অন্যায়ের মাধ্যমে চলছে এই প্রকল্প। যে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান এই কাজ পরিচালনা করছে তারা বিপুল টাকার মাধ্যমে এই কাজ পেয়েছে সুতরাং তারা শ্রমিকদের কথা না ভেবে শুধু টাকার কথা ভাবছে। শ্রমিকদের কোনো নিরাপত্তা সরঞ্জামের ব্যবস্থা না করে কাজ করতে বাধ্য করা হচ্ছে। এই কাজ করতে বাধ্য করে যে শ্রমিককে মেরে ফেলা হলো তার দায়ভার নিতে হবে এবং দোষিদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ নিশ্চিত না করা পর্যন্ত কাজ বন্ধ রাখতে হবে।'

ছাত্র ইউনিয়ন বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হক রনি বলেন, 'শ্রমিকদের সেফটি নিশ্চিত না করে যারা কাজ করতে বাধ্য করছে তারা অপরাধী। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান টাকা লুটপাট কাজে ব্যস্ত থাকার কারণে শ্রমিকদের নিরাপত্তার দিকে কোনো খেয়াল রাখছে না। শ্রমিককে হত্যা করা হয়েছে, এই হত্যার সাথে জড়িত বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান, তদারকি কমিটি। এই শ্রমিক হত্যার সঙ্গে যারা যারা জড়িত তাদের প্রত্যেকে বিচারের আওতায় আনতে হবে। নিহত শ্রমিকের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করতে হবে অন্যথা কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবো।'

ছাত্রফ্রন্ট বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত দের সঞ্চালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন ইয়াসির আরাফাত বর্ন, সুমাইয়া ফেরদৌস প্রমুখ।