• ঢাকা
  • শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২২, ০১:২৩ এএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২২, ০৭:২৩ পিএম

সিট দখলে ব্যর্থ ছাত্রলীগ : হল গেটে তালা

সিট দখলে ব্যর্থ ছাত্রলীগ : হল গেটে তালা
নিজস্ব ছবি

রাবি প্রতিনিধি ।।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শহীদ জিয়াউর রহমান হলে সিট দখলে ব্যর্থ হওয়ায় হল গেটে তালা দিয়েছে হল শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে হলের মূল ফটকে তালা দেয় তারা। এ সময় হল প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগের দাবি জানিয়ে বিকেল চারটা পর্যন্ত হল গেট তালাবদ্ধ রাখেন নেতা-কর্মীরা। যদিও হল শাখা ছাত্রলীগের কিছু নেতা-কর্মী বলছেন, ডাইনিংয়ের খাবারে কটনবার্ড পাওয়ার ঘটনায় হলের সাধারণ শিক্ষার্থীরা হল গেটে তালা দিয়েছেন। তবে ছাত্রলীগেরই একাধিক কর্মী জানিয়েছেন এই তালা দেয়ার বিষয়টি ‘পূর্ব পরিকল্পিত’।

গতকাল অবৈধভাবে থাকা কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মীকে হল থেকে নামিয়ে দেয়ার বদলা হিসেবে এমনটা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হল শাখার এক ছাত্রলীগকর্মী জানায়,  ‘আজকের আন্দোলনটি গতকালকের অবৈধ শিক্ষার্থীদের হল থেকে নামানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে করা হয়েছে। এটি পূর্ব পরিকল্পিত।’ 

বৈধ শিক্ষার্থীকে তার সিট থেকে নামিয়ে দেয়ার অভিযোগ রয়েছে আসন্ন হল সম্মেলনে জিয়া হল শাখার সভাপতি পদপ্রার্থী রাশেদ মিয়ার বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে হলের এক আবাসিক শিক্ষার্থী জানায়, হলে আসন বরাদ্দ দেয়ার পর হল প্রসাশন আমাকে আমার বরাদ্দকৃত অাসনে তুলে দেন। এদিন রাতে ছাত্রলীগ নেতা রাশেদ নিজে না এসে অন্যদের মাধ্যমে আমাকে হল থেকে নামিয়ে দেয় এবং রাতে রাশেদ ভাই আমার সাথে দেখা করতে চেয়েও পরে আর দেখা করেন নি। আমি আমার মেস ছেড়ে দিয়েছি। এখন আমার থাকার জায়গা নেই।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে এবং তালা দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে রাশেদ বলেন, ‘আমি কোনও শিক্ষার্থীকে হল থেকে বের করে দেই নি। আজকের বিষয়টি নিয়ে হলের সাধারণ শিক্ষার্থীরা তালা দিয়েছেন। আমরা তাদের যৌক্তিক দাবিগুলোর সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে আন্দোলন করেছি।’

পরে ঘটনাস্থলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা এম তারেক নূর, প্রক্টর আসাবুল হক, হল প্রাধ্যক্ষ পরিষদের আহ্বায়ক জাহিদুল ইসলাম ও শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া এসে হল প্রশাসনকে নিয়ে আলোচনায় বসেন।

আলোচনা শেষে জানতে চাইলে হল প্রাধ্যক্ষ সুজন সেন বলেন, ‘হলের শিক্ষার্থীরা বেশকিছু অভিযোগ করেছে। এগুলো সমাধানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আগামী রোববার আমাদের সঙ্গে বসতে চেয়েছেন। সেদিন বসে এই অভিযোগগুলোর সমাধান করা হবে।

সার্বিক বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক অাসাবুল হক বলে, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা আমাদের ওয়াইফাই সমস্যা, সিট সমস্যা, ডাইনিংয়ে খাবারের মানের সমস্যাহ বেশ কিছু অভিযোগ জানিয়েছেন। আমরা হল কর্তৃপক্ষকে নিয়ে আগামী রোববার বসে এই সমস্যাগুলো সমাধানে আলোচনা করব।

জাগরণ/শিক্ষা/ক্যাম্পাস/এমবি/এসএসকে