• ঢাকা
  • বুধবার, ২৫ মে, ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: এপ্রিল ৪, ২০২২, ১১:১২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ৪, ২০২২, ০৫:১২ পিএম

আমার টিপ-হিজাবে দ্বন্দ্ব নেই

আমার টিপ-হিজাবে দ্বন্দ্ব নেই
মৌটুসী খন্দকার

• মৌটুসী খন্দকার

কোনো একটা বিষয়ের পক্ষে দাঁড়ানো মানে কিন্তু এই না যে আমরা অন্য সকল কিছুর বিপক্ষে!

গত কাল থেকে টিপ পরা কে কেন্দ্র করে ঘটে যাওয়া একটি অনাকাঙ্ক্ষিত জঘন্য ঘটনার প্রতিবাদস্বরূপ পোস্ট দেয়া হচ্ছে সামাজিক মাধ্যমে। আমিও দিয়েছি, বেশ কয়েকটা। এখানে "টিপ" একটা নিমিত্ত মাত্র! এই প্রতিবাদ সে সকল মানুষ নামক জন্তুর বিরুদ্ধে যারা ভাবে নারীকে যেখানে সেখানে যা ইচ্ছা তাই বলে অপমান করা যায়, অপদস্ত করা যায়, গালি দেয়া যায়। এই প্রতিবাদ সেসব মানুষের বিরুদ্ধে যারা মেয়েদের সাজ, পোশাক, শরীর, চেহারা নিয়ে যা তা বলে যখন ইচ্ছা তখন। নারী কে শুধুই একটা নারী ভাবে, মানুষ না। 

কিন্তু খেয়াল করলাম, একদল মানুষ হঠাৎ হিজাবকে  এর মাঝে টেনে আনছে। "হিজাব এর বিপক্ষে কথা বললে কেন কেউ প্রতিবাদ করে না? হিজাব এর পক্ষে কেন কথা বলে না? হিজাবীদের কটাক্ষ করলে কেন প্রতিবাদ হয় না? ইত্যাদি ইত্যাদি ইত্যাদি!" আমরা যারা টিপ পরি, সাজ করি তারা হিজাবের বিপক্ষে এ কথা কি কেউ লিখেছে? আমার তো চোখে পরেনি! কিছুদিন আগে ভারতে হিজাবের পক্ষে হওয়া আন্দোলনে কি অংশ নেয়নি এদেশের মানুষ?  সামাজিক মাধ্যমে কি হিজাবের পক্ষে দাঁড়ানো সাহসী মুসকানের ছবি প্রকাশ করেনি কেউ? তবে কেন এই বিভাজন সৃষ্টি করা হচ্ছে? একজন হিজাব পরিহিত নারী যদি একজন টিপ পরা নারীর বন্ধু হতে পারে তবে সমাজের কিছু মানুষ কেন এই অদ্ভুত বিভেদ তৈরি করছে?? 

এই প্রতিবাদ টিপের পক্ষে বা হিজাবের বিপক্ষে নয়।  এই প্র‍তিবাদ একজন নারীকে অপমান করার প্রেক্ষিতে। একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক রাস্তায় এমন হেনস্থার শিকার হলে ভাবুন সাধারণ মেয়েদের কথা! তাদের প্রতিনিয়ত কিসের সম্মুখীন হতে হয়! ভুলে যাওয়া উচিত নয়, যে লোক আজ টিপ পরার জন্য একজনকে অপমান করছে কাল সে হিজাব বোরখা পরার জন্যও একজনকে অপমান করতে পারবে কেননা এ ধরনের মানুষের কাছে নারী কোন মানুষ না। আজ যা লতা সমাদ্দারের সাথে হলো কাল সেটা আমার সাথে হতে পারে, আমার মেয়ের সাথেও হতে পারে। 

প্রতিটি মানুষই একজনের সৃষ্টি।  তিনি বিবেক বুদ্ধি দিয়েই সকলকে পাঠিয়েছেন এই পৃথিবীতে। মানুষ তার নিজের বিবেক বুদ্ধি দিয়ে স্বকীয়তা গড়ে তোলে। সেই সৃষ্টিকর্তা ছাড়া কারোর নিজস্বতায় হস্তক্ষেপ করার অধিকার যেমন কারোর নেই তেমনি তাদের মাঝে বিভাজন সৃষ্টি করার অধিকারো নেই কারোর।

ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট, লেডিস সার্কেল বাংলাদেশ

* লেখাটি লেখকের একান্ত মতামত হিসেবে বিবেচ্য।