• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৭ মে, ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৮, ২০২০, ০১:০৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ১৮, ২০২০, ০৭:০৪ এএম

অন্তঃসত্ত্বা মায়েদের যত্নে তুলসীপাতা

অন্তঃসত্ত্বা মায়েদের যত্নে তুলসীপাতা

তুলসীপাতার ঔষধি গুণ কারো অজানা নয়। প্রাচীনকাল থেকেই বিভিন্ন চিকিৎসায় ঘরোয়া প্রতিষেধক হিসেবে রয়েছে এর ব্যবহার। গর্ভাবস্থায়ও এর সুফল ব্যাপক। অন্তঃসত্ত্বা নারীদের রক্তস্বল্পতা দূর, ভ্রূণের সঠিক গঠন, রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতে তুলসীপাতার জুড়ি নেই। তবে তা পরিমিত পরিমাণে খাওয়ার পরামর্শ দেন গবেষকরা।

চলুন জেনে নিই তুলসীপাতা খাওয়ার উপকারিতা।

অ্যানিমিয়া বা রক্তস্বল্পতা প্রতিরোধে

আয়রনের একটা বড় উৎস তুলসীপাতা। আয়রন রক্তে লোহিত রক্তকণিকার সংখ্যা ও হিমোগ্লোবিন বাড়ায়, যা অ্যানিমিয়া বা রক্তস্বল্পতার ঝুঁকি কমায়। এটি অন্তঃসত্ত্বা নারীদের শক্তি দেয়। বিভিন্ন কাজে সক্রিয় রাখতে সাহায্য করে।

শরীরের ব্যথা কমাতে

গর্ভাবস্থার শরীরের ব্যথা হওয়া সাধারণ লক্ষণ। তুলসীতে এর সমাধান মেলে কিছুটা। তুলসীর মধ্যে থাকা প্রয়োজনীয় উপাদান গর্ভাবস্থায় হওয়া ব্যথা থেকে স্বস্তি দেয়। এ ছাড়া মানসিক চাপ কমাতে ও রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে কাজ করে তুলসীপাতা।

রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়ায়

তুলসী ভিটামিন ও খনিজের ভালো উৎস, যা গর্ভবতী মায়েদের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-সি, ভিটামিন-ই, রাইবোফ্লাভিন রয়েছে। আরো রয়েছে পটাশিয়াম, জিংক, ম্যাঙ্গানিজ, কপার, ফসফরাস ও ম্যাগনেশিয়ামের মতো খনিজগুলো। যা মা ও গর্ভের শিশুকে বিভিন্ন সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে।

ভ্রূণের বিকাশে

তুলসীতে আছে ভিটামিন-এ, যা ভ্রূণের বৃদ্ধি ও বিকাশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এটি গর্ভের শিশুর হার্ট, চোখ, মস্তিষ্ক ও ফুসফুসকে ঠিক রাখতে সাহায্য করে। এ ছাড়া স্নায়ুতন্ত্রের সঠিক বিকাশে সহায়তা করে।

ভ্রূণের হাড় গঠনে

প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেশিয়াম রয়েছে তুলসীপাতায়, যা শিশুর হাড় ও কার্টিলেজ গঠনে সহায়তা করে। তুলসীতে থাকা ম্যাঙ্গানিজ খুব ভালো একটা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা গর্ভবতীদের অক্সিডেটিভ স্ট্রেস কমায়। তাদের মধ্যে কোষের ক্ষতি হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস করে।

কীভাবে, কতটুকু খাবেন এ বিষয়েও নির্দিষ্ট ধারণা থাকতে হবে। কারণ অনেক চিকিৎসক গর্ভাবস্থায় তুলসী খাওয়া থেকে সতর্ক করে দেন। চিকিৎসকরা বলেন, তুলসীপাতা কখনোই অতিরিক্ত পরিমাণে অথবা নিয়মিত খাওয়া ঠিক নয়। মাঝেমধ্যে ৩ থেকে ৫টি তুলসীপাতা মধু দিয়ে খেতে পারেন। তবে যেকোনো শারীরিক অসুস্থতায় কতটুকু পরিমাণে খাবেন, তা জানতে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়াই ভালো।