• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ মে, ২০২১, ৩০ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ১০, ২০২১, ০৮:৪৮ এএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১০, ২০২১, ০৯:৪০ এএম

লজ্জায় মুখ লাল হয় কেন?

লজ্জায় মুখ লাল হয় কেন?

প্রিয় মানুষের প্রশংসা শুনে লজ্জায় অনেকের মুখ লাল বা গোলাপি হয়ে যায়। অনেকের আবার রেগে গেলে এমনটা হয়। কিন্তু কখনো কি ভেবেছেন কেন মুখের এই পরিবর্তন? অথবা অন্য সব রং বাদ দিয়ে শুধু লাল বা গোলাপিই-বা হয় কেন? না, কোনো অদ্ভুত কারণে নয়, বরং এর পেছনেও রয়েছে বিজ্ঞান।

মানব শরীরে নানা ধরনের গ্রন্থি রয়েছে, যা থেকে হরমোন বা গ্রন্থিরস বের হয়। আর এসব হরমোন বা গ্রন্থিরসের কারণে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গগুলো বিভিন্ন রকম কাজ করে। তেমনি একটি হরমোন হলো অ্যাড্রিনালিন। মানুষ যখন লজ্জা পায় বা রেগে যায় তখন এই হরমোন নিঃসরণ বেড়ে যায়। এর ফলে হৃৎপিণ্ডের রক্তপ্রবাহের গতি বেড়ে যায়, রক্তনালি সংকুচিত হয়ে সৃষ্টি হয় রক্তচাপ।

কিন্তু মজার ব্যাপার হলো অ্যাড্রিনালিন শরীরের সব জায়গার রক্তনালিকে সংকুচিত করলেও মুখমণ্ডলের চামড়ার নিচে থাকা রক্তজালিকাগুলোর ওপর তেমন কোনো প্রভাব ফেলতে পারে না। ফলে শরীরের অন্যান্য রক্তনালি সংকুচিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মুখমণ্ডলের নিচে থাকা রক্তজালিকাগুলোর রক্তপ্রবাহ বেড়ে যায়।

মুখের রক্তজালিকাগুলো গাল, কপাল, থুতনি, ঘাড় এবং কানের কাছে ছড়িয়ে থাকায় এসব জায়গায় রক্ত চলাচল একটু বেশিই বাড়ে। আর এ কারণেই মানুষ যখন লজ্জা পায় বা রেগে যায় তখন মুখের রং পরিবর্তন হয়ে লাল বা গোলাপি দেখায়।

বড়দের তুলনায় ছোটদের এবং ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের আবেগ তুলনামূলকভাবে বেশি থাকে। তাই তাদের অ্যাড্রিনালিন নিঃসরণও বেশি হয় এবং লজ্জায় বা রাগে মুখমণ্ডলের রং পরিবর্তন হয়। এই পরিবর্তনের জন্য মানুষ নয়, বরং হরমোন দায়ী। অনেকের আবার ভয় পেলে এমনটা হয়। এর জন্যও দায়ী অ্যাড্রিনালিন হরমোন।