• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ মে, ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ২২, ২০২১, ০৪:১৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ২২, ২০২১, ০৪:৪৬ পিএম

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে মুড়ি

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে মুড়ি

বিকেল হলেই আমরা নাশতায় চায়ের সঙ্গে ‘টা’ মানে শুধুই বিস্কুট বুঝি। বিস্কুট খেলে মুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা থাকে, হতে পারে ডায়াবেটিস। কিন্তু বিস্কুটের বিকল্প হিসেবে আমরা মুড়ি খেতে পারি। শুধু মুড়ি খাওয়া যায়, আবার তেল-লবণে মাখিয়েও খাওয়া যায়। এখন রমজান মাস চলছে, তাই মুড়ির কোনো জুড়ি নেই। ইফতারিতে ছোলার সঙ্গে মুড়ি না হলে চলেই না।

মুড়ি যে কতটা উপকারী, তা আমাদের অনেকটাই অজানা। একমুঠো মুড়ির গুণাগুণ ওষুধের সমান বলছেন বিশেষজ্ঞরা। নির্দিষ্ট ও পরিমাণ মুড়ি খাওয়া শরীরের জন্য ভালো। মুড়ির রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। আসুন দেখে নেওয়া মুড়ির গুণাগুণ।

মুড়ি অম্ল বা এসিডিটি নিয়ন্ত্রণ করে শরীরের ওজন কমাতে সাহায্য করে। মুড়িতে সোডিয়ামের পরিমাণ অনেক কম তাই এটি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। পেট ভরে থাকে দীর্ঘক্ষণ।

পেটে সমস্যা দেখা দিলে শুকনো মুড়ি কিংবা ভেজা মুড়ি খেলে তাৎক্ষণিক উপকার পাওয়া যায়।

ভিটামিন বি ও মিনারেল পরিপূর্ণ থাকা মুড়ি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ও কমায় হৃদরোগের ঝুঁকিও।

মুড়িতে থাকা ফাইবার শরীরের মেটাবলিজম বাড়াতে সাহায্য করে। মুড়িতে ক্যালসিয়াম ও আয়রন রয়েছে। এটি দাঁত ও হাড়ের গঠন শক্ত করে। তাই শিশুদের অবশ্যই মুড়ি খাওয়ানো উচিত। এছাড়াও মুড়িতে থাকা শর্করা শরীরের পক্ষে যথেষ্ট উপকারী।

পুষ্টিগুণ
১৪ গ্রাম মুড়িতে রয়েছে ৫৬ ক্যালরি। কার্বোহাইড্রেটস ১২ দশমিক ছয় গ্রাম, প্রোটিন এক গ্রাম, ফ্যাট মাত্র শূন্য দশমিক এক গ্রাম, ফাইবার শূন্য দশমিক দুই গ্রাম, পটাসিয়াম ১৬ মিলিগ্রাম, আয়রন চার দশমিক ৪৪ মিলিগ্রাম, ম্যাগনেসিয়াম চার মিলিগ্রাম, ফসফরাস ১৪ মিলিগ্রাম, থিয়ামাইন শূন্য দশমিক ৩৬ মিলিগ্রাম এবং নিয়াসিন চার দশমিক ৯৪ মিলিগ্রাম।