• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ মে, ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: জুন ১৫, ২০২১, ০৩:২৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ১৫, ২০২১, ০৯:২৮ এএম

বুকে জ্বালাভাব দূর করবে যে পানীয়টি

বুকে জ্বালাভাব দূর করবে যে পানীয়টি

অনেকেই গলা ও বুকে জ্বালাভাব অনুভব হয়। খাবার হজমে বা পরিপাকে বাধা পেলেই এমনটা হয় বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যবিদরা। জ্বালাভাব সহ্য করতে না পেরে চটজলদি অ্যাসিডিটির ওষুধ খাচ্ছেন। এতে শরীরে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হচ্ছে। কিন্তু তাৎক্ষনিক আরাম পেতে ওষুধ সেবন ছাড়া অন্য উপায়ও পাচ্ছেন না।

মানুষের পাকস্থলীর ভিতরে হাইড্রোকোলিক অ্যাসিড স্বাভাবিকভাবেই নিঃসৃত হয়। তবে কেন এই অ্যাসিডিটি হয়? স্বাস্থ্যবিদদের মতে, অ্যাসিডিটি হওয়ার কারণ দুটি। প্রথমত খাদ্যাভ্যাসে ত্রুটির কারণে অতিরিক্ত অ্যাসিড নিঃসৃত হয়। দ্বিতীয়ত খাদ্যনালী এবং পাকস্থলীর সংযোগস্থলে কোনও গঠনগত ত্রুটি থাকলে জ্বালাভাব হয়। এতে পাকস্থলীতে নিঃসৃত অ্যাসিড ওপরে উঠে আসে। এছাড়াও পেটের অন্ত্রে অবস্থানকারী ব্যাকটেরিয়া সন্ধান প্রক্রিয়ায় অ্যাসিডিটি উৎপাদিত হতে পারে।

অতিরিক্ত জ্বালাভাব কেন অনুভূত হয় এর কারণ জানিয়েছেন স্বাস্থ্যবিদরা। তারা বলেন_

  •  সোডা জাতীয় কোল্ডড্রিঙ্কস পান করলে
  • খুব তাড়াহুড়ো করে খাবার খেলে বা পানীয় পান করলে
  • গ্লাসে চুমুক দিয়ে পানি না খেয়ে আলগা করে ঢেলে খেলে পেটে ফোলাভাব হয়। জ্বালাভাব বেড়ে যায়। 
  • পেটে অতিরিক্ত মাত্রায় ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধি পেলে
  • অপরিশোধিত অথবা অর্ধ পাচিত বা বাসী খাবার খেলেও অ্যাসিডিটি হতে পারে।
  • অতিরিক্ত তেল অথবা মশলাজাতীয় খাবার খেলে
  • লোভ সামলাতে না পেরে অতিরিক্ত খাবার খেলে
  • পরিপাকপ্রণালীর কিছু গঠনগত সমস্যা অথবা হরমোন নিঃসরণ প্রক্রিয়ায় ত্রুটি থাকলে অ্যাসিডিটি হতে পারে।

 

এই রোগের ঘরোয়া প্রতিকার জানিয়েছেন স্বাস্থ্যবিদরা। শুধুমাত্র ওষুধ সেবনের উপর ভরসা না করে, দীর্ঘকাল অ্যাসিডিটি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করবে ঘরোয়া এই উপায়গুলো_

আপনার বিপাকক্রিয়া বৃদ্ধি করে হজম শক্তি বাড়িয়ে নেওয়াই এটার একমাত্র সমাধান। একটি পানীয় তৈরি করে নিন। এটি নিয়মিত পান করুন। দীর্ঘস্থায়ী উপকার পাবেন। যেভাবে বানাবেন এই পানীয়_

আধা চামচ জিরে গুঁড়ো, আধা চামচ দারুচিনি গুঁড়ো, সামান্য  আদা নিয়ে নিন। চুলায় একটি পাত্রে এক গ্লাস পরিমাণ পানি নিয়ে তাতে আদা টুকরো দিন।এরপর জিরা এবং দারুচিনি গুঁড়ো দিন।

অল্প আঁচে ৫ থেকে ৭ মিনিট রান্না করুন। এরপর চুলা থেকে নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন। এই পানীয়টি ছেঁকে নিন। এরপর হালকা গরম থাকা অবস্থায় পানীয়টি পান করুন। নিমিষেই চলে যাবে অ্যাসিডিটি বা অম্বলের সমস্য়া।