• ঢাকা
  • বুধবার, ০৫ অক্টোবর, ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯
প্রকাশিত: মার্চ ২৯, ২০২২, ০৭:৩৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ২৯, ২০২২, ০১:৩৫ পিএম

টিপুর স্ত্রীকে র‌্যাব কার্যালয়ে যেসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ

টিপুর স্ত্রীকে র‌্যাব কার্যালয়ে যেসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ
জাহিদুল ইসলাম টিপুর সঙ্গে স্ত্রী ফারহানা ইসলাম ডলি।। ফাইল ছবি

রাজধানীর শাহজাহানপুরে আওয়ামী লীগ নেতা জাহিদুল ইসলাম টিপু হত্যা মামলার বাদী এবং তার স্ত্রী ফারহানা ইসলাম ডলিকে র‌্যাব ৩-এর কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

ডলি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সংক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর। তাকে সোমবার (২৮ মার্চ) দিনগত রাত ১০টার দিকে টিকাটুলিতে র‌্যাব কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। রাত ১২টার দিকে তাকে আবার বাসায় পৌঁছে দেওয়া হয়।

আজ মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) সকালে ডলি বলেন, ‘কোনো তথ্য আমি জানি কি না…এ জন্যই আমাকে ডাকা হয়েছে। এর আগে সাংবাদিক সম্মেলন করার আগে ডিবি ডেকে নিয়েছিল। যেহেতু আমি তার (টিপুর) স্ত্রী, আমার সঙ্গে কোনো কথা শেয়ার করেছিল কি না, কাউকে সন্দেহ হয় কি না- ইত্যাদি জানতে চাওয়া হয়েছে। তারপরে রাজনৈতিক পরিস্থিতিটা জানতে চেয়েছে ১০ নম্বর ওয়ার্ডের। এসব নিয়ে কথা হয়েছে এই আরকি।’

টিপুর স্ত্রীকে কেন ডেকে নেওয়া হয়েছিল জানতে চাইলে র‌্যাব ৩-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফ মহিউদ্দীন বলেন, ‘কিছু বিষয় জানার জন্য আমরা তাকে ডেকেছিলাম।’

শাহজাহানপুরের আমতলী এলাকার রাস্তায় গত বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) দিনগত রাত ১০টার দিকে অস্ত্রধারীর গুলিতে নিহত হন মতিঝিল থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম টিপু (৫৪)। ওই সময় গাড়ির কাছেই রিকশায় থাকা বদরুন্নেছা সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী সামিয়া আফনান প্রীতিও গুলিতে নিহত হন।

ঘটনার পরদিন শুক্রবার সকালে টিপুর স্ত্রী ডলি শাহজাহানপুর থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

টিপু প্রায় এক দশক আগে যুবলীগ নেতা রিয়াজুল হক খান মিল্কী হত্যা মামলার আসামি ছিলেন। ঘটনার ৪-৫দিন আগে ফোনে তাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছিল বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন তার স্ত্রী। হত্যাকাণ্ডের ৩ দিনের মাথায় গত রোববার বগুড়া থেকে মাসুম মোহাম্মাদ আকাশ নামে একজনকে গ্রেপ্তারের কথা জানায় পুলিশ।

গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার হাফিজ আকতার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আকাশই ‘মূল খুনি’। টিপুকে হত্যার জন্য তাকে ভাড়া করা হয়েছিল।

তবে কারা এবং কেন টিপুকে হত্যা করার জন্য খুনি ভাড়া করেছে, সেসব প্রশ্নের উত্তর এখনও দিতে পারেনি পুলিশ।