• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬
প্রকাশিত: জুলাই ১১, ২০১৯, ০৭:২০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ১১, ২০১৯, ০৭:২০ পিএম

অস্ত্র মামলায় লঘুদণ্ড, বিচারকের ব্যাখ্যা তলব করেছেন হাইকোর্ট

জাগরণ প্রতিবেদক
অস্ত্র মামলায় লঘুদণ্ড, বিচারকের ব্যাখ্যা তলব করেছেন হাইকোর্ট

এক আসামিকে অস্ত্র মামলায় নির্ধারিত সর্বনিম্ন সাজার চেয়েও কম সাজা দেয়ার পরিপ্রেক্ষিতে মামলার বিচারকের কাছে ব্যাখ্যা তলব করেছে হাইকোর্ট। নাটোরের তিন নম্বর বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক বেগম রুবাইয়া ইয়াসমিনের কাছে এই ব্যাখ্যা তলব করেছে উচ্চ আদালত।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) বিচারপতি এএনএম বশির উল্লাহ ও বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলামের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেয়। আদেশে আগামী ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ওই দিন এই মামলার পরবর্তী আদেশ দেবে আদালত।

আদালতে আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. তাহেরুল ইসলাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. আমিনুল ইসলাম ও আনোয়ারা শাহজাহান।

জানা গেছে, অস্ত্র মামলার আসামি নাটোর সদরের কাঠালবাড়িয়া গ্রামের মো. লোকমান ভুঁইয়ার ছেলে মো. রাজ্জাককে অস্ত্র মামলায় দেয়া ৭ বছরের কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে আসামির করা আপিলের ওপর শুনানিকালে বিষয়টি আদালতের নজরে আসায় এ আদেশ দেয় হাইকোর্ট। কারণ এই আইনে সর্বনিম্ন সাজা ১০ বছর।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২৭ জুলাই পিস্তলসহ মো. রাজ্জাককে গ্রেফতার করে পুলিশ। একই দিন তার বিরুদ্ধে নাটোর সদর থানায় মামলা হয়। এই মামলায় বিচার শেষে গত ২৮ মার্চ রাজ্জাককে ৭ বছরের কারাদণ্ড দেয় নাটোরের তিন নম্বর বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক। ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯ক ধারায় এ সাজা দেয়া হয়। অথচ আইনের এই ধারায় সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং সর্বনিম্ন সাজা ১০ বছর।

এমএ/টিএফ

Islami Bank