• ঢাকা
  • রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
প্রকাশিত: নভেম্বর ৭, ২০২২, ১২:১৪ এএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ৬, ২০২২, ০৬:১৪ পিএম

৪০ কোটি টাকা শোধ করলেন ৫ ঋণখেলাপি

৪০ কোটি টাকা  শোধ করলেন ৫ ঋণখেলাপি

চট্টগ্রামে ২২ বছর আগের পুরোনো ঋণখেলাপি মামলায় দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দেয়ার পর ৪০ কোটি টাকা খেলাপি ঋণ পরিশোধ করলেন পাঁচ ব্যবসায়ী।

রোববার (৬ নভেম্বর) চট্টগ্রাম অর্থঋণ আদালতের যুগ্ম জজ মুজাহিদুর রহমানের আদালত এ অর্থের চালান রসিদ জমা দেন।

দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা পাওয়া ব্যবসায়ীরা হলেন- মেসার্স মোনাভী টেক্সটাইল কমপ্লেপ লিমিটেডের পরিচালক ইদ্রিস মিনহাজ, ইলিয়াস মুরাদ, সামসুদ্দিন রিয়াদ, শামসুল আলম ফয়সাল ও মিসেস ফারজানা মুরাদ। আদালতের বেঞ্চ সহকারী রেজাউল করিম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০০০ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর ৬২ কোটি টাকার খেলাপি ঋণ আদায়ের জন্য চট্টগ্রামের অর্থঋণ আদালতে বন্ধকি মামলা করে আইএফআইসি ব্যাংক আগ্রাবাদ শাখা। দীর্ঘ ২২ বছর আইনি লড়াইয়ের পর অবশেষে ৪০ কোটি টাকা আদায় করতে সক্ষম হয়েছে ব্যাংকটি।
আদালত ব্যাংকের আবেদনের ওপর শুনানি শেষে মেসার্স মোনাভী টেক্সটাইল কমপ্লেপ লিমিটেডের পাঁচ পরিচালকের বিরুদ্ধে চলতি বছরের গত ২৭ জুন দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। তার পরই খেলাপি ঋণ পরিশোধে এগিয়ে আসেন মোনাভী টেক্সটাইলের মালিক শাহ মুরাদ।

এর আগে ২০২১ সালের ৪ নভেম্বর ৬০ দিনের মধ্যে ডিক্রি করা ৬২ কোটি ৭১ লাখ ৮২ হাজার ২৪৯ টাকা পরিশোধ করতে ঋণখেলাপিদের নির্দেশ দেন আদালত। কিন্তু অর্থ পরিশোধ না করায় ব্যাংক জারি মামলা হয়। ডিক্রির টাকা পরিশোধে গড়িমসি করায় গত ২৭ জুন পাঁচ পরিচালকের বিরুদ্ধে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন অর্থঋণ আদালত। এর পরই ঋণখেলাপিরা ২২ বছরের পুরোনো ঋণ পরিশোধে বাধ্য হন।

জাগরণ/অর্থনীতি/এসএসকে