• ঢাকা
  • রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮
প্রকাশিত: জুন ১০, ২০২১, ০১:৫৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ১০, ২০২১, ০৮:০০ এএম

এভারেস্ট চূড়ায় এশিয়ার প্রথম দৃষ্টিহীন পর্বতারোহী

এভারেস্ট চূড়ায় এশিয়ার প্রথম দৃষ্টিহীন পর্বতারোহী

প্রতিকূলতা-প্রতিবন্ধকতা উপেক্ষা করে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখতেই মানুষ ছুটে যান পর্বতে। কিন্তু প্রাকৃতিক সৌন্দর্য যিনি দেখতে পারবেন না তিনি কেন পর্বতে ছুটবেন? উত্তর একটাই, পর্বত জয়ের ইচ্ছে আর আত্মতৃপ্তি। 

সম্প্রতি এশিয়ায় প্রথম দৃষ্টিহীন এক ব্যক্তি জয় করলেন পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ মাউন্ট এভারেস্ট। তার নাম ঝাং হং। ৮৬ বছর বয়সী চীনের নাগরিক ঝাং হং নেপালের দিক থেকে মাউন্ট এভারেস্টের পথে যাত্রা করেন। এরপর প্রতিকূলতা পেরিয়ে এভারেস্টের চূড়ায় উঠে তিনি বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দেন।

জিনিউজ জানায়, মে মাসের শেষের দিকে ঝাং এভারেস্টে উঠেন। বিশ্বে তিনিই তৃতীয় দৃষ্টিহীন ব্যক্তি, যিনি এভারেস্ট জয় করলেন। 

চীনের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের চংকুয়াং শহরে জন্ম নেন ঝাং হং। ২১ বছর বয়সে গ্লুকোমায় তিনি অন্ধ হয়ে যান। তবু পর্বতজয়ের তৃপ্তি নিতেই ছুটেছেন এভারেস্টের দিকে।

পর্বত জয়ের আনন্দ প্রকাশ করে ঝাং হং বলেন, “আপনি পঙ্গু না, স্বাভাবিক, সেটা কোনো বিষয়ই নয়। আপনি দৃষ্টিশক্তি হারিয়েছেন, নাকি আপনার হাত বা পা নেই, এ-ও কোনো বিষয় নয়। আসল কথা হলো, আপনার মনোবল। মনোবল দৃঢ় থাকলে আপনি আপনার লক্ষ্যে পৌঁছতে পারবেন।”

২০০১ সালে দৃষ্টিহীন অবস্থায় মার্কিন পর্বতারোহী এরিক ওয়েহেনমায়ের প্রথম এভারেস্ট জয় করেন। সেই থেকে অনুপ্রেরণা পান ঝাং হং। শুরু করেন ট্রেনিং। পর্বত আহোরণের গাইড কিয়াং জির কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নেন।

গত এপ্রিলে নেপাল মাউন্ট এভারেস্ট বিদেশিদের জন্য খুলে দেওয়া হলেই প্রস্তুতি শুরু করেন ঝাং হং। অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ে ঝাং বলেন, “ওঠার সময় খুবই ভয় পাচ্ছিলাম। মাঝেমধ্যে পড়েও গিয়েছি। তবে ধৈর্য হারাইনি। সব প্রতিকূলতা পার হয়েই এগিয়ে যেতে পেরেছি।”