• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১১ আশ্বিন ১৪২৯
প্রকাশিত: আগস্ট ২১, ২০২২, ১২:০৪ এএম
সর্বশেষ আপডেট : আগস্ট ২০, ২০২২, ০৬:০৪ পিএম

ঢাকায় বেড়েছে এইডিসের রাজত্ব

ঢাকায় বেড়েছে এইডিসের রাজত্ব
সংগৃহীত ছবি

রাজধানী ঢাকায় এবার এইডিস মশার ঘনত্ব বেড়েছে। চলমান মশা জরিপের প্রাথমিক তথ্যে এমন চিত্রই উঠে এসেছে। ফলে এবার ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বাড়ার শঙ্কা রয়েছে। 

দুই সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা ও বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, নগরবাসী নিজ নিজ বাড়ি এইডিস মশামুক্ত রাখতে পারলেই কেবল ডেঙ্গু ঠেকানো সম্ভব। 

আগস্ট মাস থেকেই বাড়তে শুরু করে ডেঙ্গুর প্রকোপ। প্রতিদিন সারাদেশে ১০০ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হচ্ছে। এদের বেশিরভাগই ঢাকার বাসিন্দা। 

আগস্ট ও সেপ্টেম্বর এই দুই মাস ডেঙ্গুর জন্য ঝুঁকিপূর্ণ সময়। কারণ এই সময়েই সবচেয়ে বেশি বংশ বিস্তার করে এডিস মশা। 

তাই ডেঙ্গুবাহক এইডিস মশার ঘনত্ব নির্ণয়ে মাঠে নেমেছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখা।

শনিবার (২০ আগস্ট) সকালে ডিএসসিসির ওয়ারি এলাকায় অভিযান চালান তারা। 

এ সময় একটি নির্মাণাধীন ভবন, আবাসিক বাড়ির আন্ডারগ্রাউন্ড ও রেস্তোরাঁয় জমে থাকা পানির মধ্যে এইডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়।

লার্ভার এমন উপস্থিতি ভাবিয়ে তুলছে বিশেষজ্ঞদের। তারা বলছেন, চলমান জরিপে এইডিসের যে ঘনত্ব মিলছে তাতে এ মাস ও আসছে সেপ্টেম্বর নিয়ে তৈরি হয়েছে শঙ্কা।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, এ জরিপ থেকে আমরা বিভিন্ন এলাকা থেকে মশার উপস্থিতি, ঘনত্ব, বিভিন্ন ধরনের পাত্রে তাদের উপস্থিতি এবং মশার যে প্রজাতি আছে, সেগুলোকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছি।

তিনি আরও বলেন, এটি চলমান প্রক্রিয়া। যদি ভালোভাবে জীবন-যাপন করতে চাই, আমরা যদি পরবর্তী প্রজন্মকে নিরাপদ রাখতে চাই, তবে সবাইকে মিলে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।  

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কীটতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক কবিরুল বাশার বলেন, বছরের অন্য সময়ের তুলনায় এইডিসের লার্ভার উপস্থিতি বেশি পাওয়া যাচ্ছে।

তাই আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত ডেঙ্গু মশার উপদ্রব থাকবে। এরপর এইডিস মশার প্রভাব কিছুটা কমে আসে।

ডেঙ্গু রোগী বেশি শনাক্ত হয়েছে সেটা আমাদের জন্য ভালো উল্লেখ করে নাজমুল ইসলাম বলেন, এতে করে বেশি রোগীদের শনাক্তের মাধ্যমে আমরা চিকিৎসা দিতে পারছি। 

যারা চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই ওষুধ পাড়া মহল্লার ফার্মেসি থেকে কিনে খাচ্ছেন সেটা রোগীর জন্য বিপদজনক।

সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অভিযান জোরদার করে এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে রাখার পরামর্শও দিয়েছেন এই বিশেষজ্ঞ। সেই সঙ্গে নিজ নিজ বাসা পরিষ্কার রাখতে নগরবাসীর সহায়তাও চেয়েছেন তিনি।

জাগরণ/স্বাস্থ্য/রাজধানী/এসএসকে