• ঢাকা
  • সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৭, ২০২৩, ১২:২১ এএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৭, ২০২৩, ১২:২১ এএম

দূষিত শহরের তালিকায় চতুর্থ ঢাকা

দূষিত শহরের তালিকায় চতুর্থ ঢাকা
ছবি ● ফাইল ফটো

বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত শহরের তালিকায় চতুর্থ স্থানে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা। বিশ্বজুড়ে বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা, এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স-একিউআই এ তথ্য জানিয়েছে।

রোববার (১৬ এপ্রিল) সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ঢাকার বায়ুদূষণ সূচকের স্কোর রেকর্ড করা হয় ১৭৯; বায়ুদূষণের এ মান অস্বাস্থ্যকর বলে বিবেচনা করা হয়।

২২২ স্কোর নিয়ে দূষণের এই তালিকার শীর্ষে রয়েছে থাইল্যান্ডের চিয়াং মাই শহর। ১৯২ স্কোর নিয়ে নেপালের কাঠমান্ডু দ্বিতীয় এবং ১৯০ স্কোর নিয়ে ভারতের দিল্লি রয়েছে তৃতীয় স্থানে।

ঢাকার পরের স্থানে রয়েছে ভারতের কলকাতা, থাইল্যান্ডের ব্যাংকক, ভিয়েতনামের হ্যানয়, পাকিস্তানের লাহোর, চীনের চেংডু এবং ভিয়েতনামের হো চি মিন শহর।

বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি বৈশিষ্ট্যের ওপর ভিত্তি করে। সেগুলো হলো বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ এবং ওজোন (ও৩)।

বায়ু দূষণ কমাতে বিধিমালা পরিবর্তনের সুপারিশ করেছে বায়ুমণ্ডলীয় দূষণ অধ্যয়ন কেন্দ্র-ক্যাপস। বস্তুকণার আদর্শমান কমানো, আমদানি করা ডিজেলে সালফারের সর্বোচ্চ সীমা নির্ধারণের তাগিদ দিয়েছে সংস্থাটি। সুপারিশগুলো দ্রুত বাস্তবায়ন না হলে পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্য মারাত্মক ঝুঁকিতে পড়বে বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের।

গাড়ির কালো ধোঁয়া, রাস্তা খোড়াখুঁড়ি, নির্মাণ সামগ্রী যত্রতত্র ফেলে রাখায় বাড়ছে বায়ুদূষণ। বিশ্বব্যাংকের গবেষণা বলছে, বাংলাদেশে অকাল মৃত্যুর ২০ ভাগ হয় বায়ুদূষণের কারণে।

এ পরিস্থিতিতে দূষণ রোধে সোচ্চার বেশ কয়েকটি সংস্থা। বায়ুমণ্ডলীয় দূষণ অধ্যয়ন কেন্দ্র বলছে, দূষণ নিয়ন্ত্রণ বিধিমালায় বস্তুকণার আদর্শমান প্রতি ঘন মিটারে ১৫ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ মাইক্রোগ্রাম করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। এটি কমিয়ে আনার সুপারিশ করা হয়।

ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোতে আমদানিকৃত ডিজেলে সালফারের সীমা ১০ পিপিএম। কিন্তু দেশে আমদানি ব্যয় কমাতে ৩৫০ থেকে বাড়িয়ে ৫০০ বা তার বেশি পিপিএম সালফারযুক্ত ডিজেল আমদানির অনুমতি দেয় শিল্প মন্ত্রণালয়। এটাও বায়ু দুষণের অন্যতম কারণ বলেও জানান গবেষকরা।

জাগরণ/পরিবেশ/রাজধানী/এসএসকে