• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই, ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯
প্রকাশিত: জুন ৫, ২০২২, ০৮:৪৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ৫, ২০২২, ০৮:৪৯ পিএম

প্রকৃতি ও জীবন ক্লাবের যাত্রা শুরু

প্রকৃতি ও জীবন ক্লাবের যাত্রা শুরু

পরিবেশ সংরক্ষণে সমমনা মানুষদের নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হলো ‘প্রকৃতি ও জীবন ক্লাব’। ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবসে ১০০ টি ফলদ, বনজ ও ঔষধি বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে পরিবেশ রক্ষার এই স্বেচ্ছাসেবী ক্লাবের শুভ উদ্বোধন করা হয়। 

সকাল ১১ টায় রাজধানীর মতিঝিল সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে ক্লাবের শুভ সূচনা করেন প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিত মজুমদার বাবু। এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সৈয়দ হাফিজুল ইসলামসহ অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ ও ছাত্ররা উপস্থিত ছিলেন। বেলা ১২ টায় নটরডেম কলেজে ক্লাবের পক্ষ থেকে বৃক্ষরোপণের সময় কলেজের অধ্যক্ষ ফাদার হেমন্ত পিউস রোজারিওসহ অন্যান্য শিক্ষক ও ছাত্ররা উপস্থিত ছিলেন।

বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে ক্লাবের শুভ সূচনা করে মুকিত মজুমদার বাবু বলেন, ‘দেশের আপামর জনসাধারণ বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মকে প্রকৃতি সংরক্ষণে সম্পৃক্ত করে তৃণমূল পর্যায়ে গণসচেতনতা সৃষ্টি, বিভিন্ন জাতীয়-আন্তর্জাতিক দিবস উদযাপন ও প্রকৃতি শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করাই প্রকৃতি ও জীবন ক্লাবের উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য।’

নবগঠিত এই ক্লাবটি প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের একটি অঙ্গ-সংগঠন হিসেবে কাজ করবে। এরই মধ্যে দেশব্যাপী প্রকৃতি ও জীবন ক্লাবের শাখা গঠনের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এই ক্লাব বৃক্ষরোপণ, প্রকৃতি সংরক্ষণ নিয়ে কর্মশালা ও সেমিনার করবে। এছাড়াও প্রকৃতিমেলা, দেয়ালপত্রিকা, ম্যাগাজিন প্রকাশ, সংগীতানুষ্ঠান, নাটক, আবৃত্তি ইত্যাদি সাহিত্য-সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে পরিবেশ সংরক্ষণে সচেতনতা সৃষ্টির কাজ করবে।

বাংলাদেশের প্রকৃতি বৈচিত্র্যময় সৌন্দর্যের আধার। এই নৈসর্গিক সৌন্দর্যের উজ্জ্বল রঙ আজ বিবর্ণ। প্রকৃতির বিবর্ণতাকে উজ্জ্বল করতেই প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের পথচলা। ‘সুন্দর প্রকৃতিতে গড়ি সুস্থ জীবন’ স্লোগানকে সামনে রেখে ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ইমপ্রেস গ্রুপের অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশন’। বর্তমানে বাংলাদেশের পরিবেশ ও প্রকৃতি সংরক্ষণে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি। পরিবেশ সুরক্ষায় সমমনা মানুষদের নিয়ে প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশন দাঁড়াতে চায় এক মঞ্চে, যার নাম প্রকৃতি ও জীবন ক্লাব। এই ক্লাব বাংলাদেশের প্রকৃতি সংরক্ষণে নিবেদিত আলোকিত মানুষদের দেশপ্রেম ও কল্যাণকর কাজের একটি মিলনমঞ্চ।

 

এসকেএইচ//