• ঢাকা
  • শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১, ২৭ চৈত্র ১৪২৭
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১, ০১:২২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১, ০৪:৪৭ পিএম

সহজে খুশকি তাড়ান

সহজে খুশকি তাড়ান

চুলের শুষ্কতা খুশকির একটি বড় কারণ। এ সমস্যায় ভুগতে হয় প্রায় সারা বছরই। এ থেকে মাথায় চুলকানি, চুল পড়া বেড়ে যাওয়াসহ অন্য সমস্যাও বেড়ে যায়। অপরিস্কার চুল, শুষ্কতাসহ নানা কারণ থাকে খুশকি হওয়ার পেছনে। এ থেকে রেহাই পেতেও কতোই না চেষ্টা। উপায় না পেয়ে বাজারের দামি শ্যাম্পু কিংবা অন্য প্রোডাক্ট ব্যবহার করি। তবুও যেন সমাধান মেলে না। কিছু সময় ভালো থাকলেও আবারও ফিরে আসে খুশকি।

জানেন কী, খুশকি থেকে মুক্তি দিতে পারে বেশকিছু ঘরোয়া উপায় বেশ কার্যকর। সহজ পদ্ধতিতে সহজেই মুক্তি পাবেন খুশকি থেকে।

  • চুলের জন্য বেশ উপকারী অ্যাপেল সিডার ভিনিগার। তেলের সঙ্গে ভিনেগার মিশিয়ে মাথায় কিছুক্ষণ মেখে রাখুন। কিছুক্ষণ পর ভালো শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। চুল ধুয়ে নেওয়ার পর পানিতে পুরো একটি লেবুর রস চিপে মাথায় ঢেলে নিন।
  • সামান্য আপেল সিডার ভিনিগার পানিতে মিশিয়ে নিন। এতে একটু অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে ভাল করে মাথার ত্বকে লাগিয়ে নিন। ৪০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে দু-তিনবার করুন।
  • শুষ্ক চুলের সমাধানে দইয়ের প্যাক লাগিয়ে নিন। খুশকি সরানোর সঙ্গে সঙ্গে চুলের গোড়া শক্ত করে দই। কন্ডিশানিং-এরও কাজ করে। রুক্ষ চুলে থাকা ব্যাকটেরিয়াকেও নির্মূল করে দই।
  • নিমপাতা তেতো হয়। তেতো এই গাছের পাতার অনেক গুণ। মাথায় ঘাম থেকে জমা ব্যাকটেরিয়াকে নির্মূল করে নিমপাতা। চুলের গোড়ায় নিম পাতা বেটে লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর ধুয়ে নিন। খুশকি ও চুলকুনির মতো সমস্যার সমাধানে এ জুড়ি নেই।
  • পেয়াজের রসও বেশ উপকারী। পেয়াজ পেস্ট করে রস ছেকে নিন। এটি মাথার ত্বকে লাগিয়ে রাখুন প্রায় এক ঘণ্টা। এরপরই পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

মনে রাখবেন, খুশকি থেকে দূরে থাকতে পরিস্কার চুলের কোন বিকল্প নেই। নিয়মিত মাথার ত্বক পরিস্কার রাখুন। ঘুমের সময় বিছানার চাদর ও বালিশ পরিস্কার রয়েছে কিনা সেদিকেও খেয়াল রাখুন। অন্যের চিরুনি দিয়ে মাথা আঁচড়ে নেওয়াও খুব খারাপ অভ্যাস। এছাড়াও পর্যাপ্ত পানি খাবেন। যা চুলের আদ্রতা রোধ করবে।