• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২১, ০৪:৩২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২১, ১০:৪৩ এএম

সেরা শখের তালিকা করুন

সেরা শখের তালিকা করুন

অবসর সময় কাটানোর জন্য শখের কিছু করা, নাকি শখের কাজ করার জন্য অবসর সময় বের করে নেওয়া, কোনটা পছন্দ আপনার? দৈনন্দিন ব্যস্ততার ফাঁকে শখের কাজগুলো অনেকটা প্রশান্তি দেয়। শুধু শারীরিক নয়, মানসিকভাবেও আপনাকে প্রাণবন্ত করবে।

৪টি পৃথক গবেষণায় দেখা যায়, অবসর সময়ের কাজগুলো রক্তচাপসহ স্বাস্থ্যকে ভালো রাখতে সাহায্য করে। ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য মনোবিজ্ঞানী ম্যাথু জাওয়াদজকির এক সমীক্ষায় দেখেন, অবসর কর্মকাণ্ড তাৎক্ষণিক চাপ থেকে মুক্তি দিতে পারে, পাশাপাশি দীর্ঘ সময়ের মানসিক চাপ এবং হতাশায় থেকে রেহাই দেয়।

তাই দেরি না করে অবশ্যই, আপনি যে নতুন শখটি উপভোগ করেছেন, তা খুঁজে বের করুন। মেয়েদের সেরা শখের একটি তালিকা নিয়েই থাকছে আজকের আয়োজন।

বইপড়া উপভোগ করুন

বই পড়া উপভোগ করুন। বই পড়ার অভ্যাস থাকলে তা আপনার চিন্তাশক্তির ওপর রাজত্ব করে। বেছে নিন পছন্দের লেখকের পছন্দের বই। একটি বই বাছুন এবং কিছুক্ষণের জন্য নিজের পৃথিবীতে হারিয়ে যান।

রংতুলিতে চিত্র আঁকুন

শৈল্পিক প্রতিভা নেই? কোন চিন্তা করবেন না! মনের ইচ্ছাগুলোকে কাগজে একে নিতে পারেন। রংতুলির ছোবলে ভালো কিছু হয়েও যেতে পারে। সৃজনশীল এই কাজকে বেশ উপভোগ করবেন।

গান শুনুন

রাতের খাবারের সময় কিংবা গোসলের সময়টাতে গান শুনতে পারেন। গুনগুন করে গান করতেও পারেন। বিনোদনের পাশাপাশি কিছুটা মানসিক প্রশান্তি দেবে।

নাচের ক্লাস

নাচের ক্লাস বা জুমবা ক্লাসে যোগ দিন। শারীরিক সুস্থতা পাবেন। আপনার বাসার কাছাকাছি নাচের স্কুলগুলোর সন্ধান করুন। এতে কাজের ফাকেও নিয়মিত নাচের ক্লাসে যাওয়া সুবিধে হবে।

ভিডিও টিউটোরিয়াল বানান

অনলাইনে ভিডিও টিউটোরিয়াল বানাতে পারেন। যা করছেন সেই কাজগুলো ভিডিও আকারে ধারণ করে রাখুন। এরপর সোশ্যাল যোগাযোগমাধ্যমে বন্ধুদের সঙ্গে কিংবা সাধারণ মানুষের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন।

স্ক্র্যাপবুক বানাতে পারেন

একটি স্ক্র্যাপবুক তৈরি করুন। এই ডিজিটাল যুগে, আমরা প্রতি মুহূর্ত ধরে রাখতে পারি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে। মুহূর্তগুলোকে ফেমবন্দি করে রাখুন। কারুকাজ করা ক্র্যাপবুক আপনার পরবর্তী প্রজন্মের কাছে স্মৃতি সংরক্ষণ করবে।

মঞ্চের কাজে যোগ দিন

যদি অভিনয়, নৃত্যে কিংবা উপস্থাপনায় শখ থাকে তবে মঞ্চ কাপাতে পারেন। নিয়মিত মঞ্চের অনুশীলনে যান। কবিতা আবৃতিতে ক্লাস শুরু করতে পারেন। এসবই আপনার  প্রতিভাকে পরিস্ফুটিত করবে।

ফটোগ্রাফি

স্মার্টফোনে সব সময় ক্যামেরা থাকে। যা দিয়ে ফটোগ্রাফি করতে পারেন। কিংবা ভালো মানের ক্যামেরা কিনে নিন। বেরিয়ে যান ঘুরতে। এরপর সুন্দর সবকিছুই ক্যামেরাবন্দি করে রাখতে পারেন। যা পছন্দ অনুযায়ী বেছে ফ্রেমে বাধিয়েও রাখা যাবে।

বাগান সাজিয়ে নিন

বাগান তৈরি করুন। বাগানকে মনের মতো সাজান। পছন্দের ফুল, ফল কিংবা পাতা বাহারের গাছ দিয়ে রাঙিয়ে তুলুন বাগানের চারপাশ। টবগুলোও রাঙিয়ে নিতে পারেন পছন্দের রঙে। সকাল, বিকেল বাগানের পরিচর্যা করেই সুন্দর সময় কাটিয়ে নিতে পারেন।

গহনা কাজে সৃজনশীলতা

নিজের গহনা নিজেই তৈরি করে নিতে পারেন। নারীরা শৈল্পিক কাজে বেশ আগ্রহী। নিজের গহনা তৈরির দুটি সুবিধা রয়েছে- এতে আপনার সৃজনশীলতা ধরে রাখবে এবং এই শিল্পকর্মে অন্যের প্রশংসাও পাওয়া যাবে। পছন্দের উপকরণ দিয়ে পছন্দের ও একটু ভিন্ন গহণা বানিয়ে নিন।

ভিডিও গেমস

ভিডিও গেমস খেলতে পারেন। ছোট-বড় সবাই অবসর সময়ে এটি উপভোগ করতে পারেন। ধাঁধা গেমস আপনার মনকে তীক্ষ্ণ রাখতে সহায়তা করতে পারে।

পাজল গেমস

অবসর সময়ে পাজল গেমস খেলতে পারেন। এটি আপনার চিন্তাশক্তিকে বুস্ট করবে। পাজলের টুকরো গুলো মিলিয়ে নিন। কতটা কম সময়ে এটি করতে পারেন তা খেয়াল রাখুন। পুরো সময়টা উপভোগ করবেন।

ম্যারাথন দৌড়

সকালে নিয়ম করে দীর্ঘসময় দৌড়াতে পারেন। আবার ম্যারথন দৌড়েও অংশ নিতে পারেন। বন্ধুদের সঙ্গে নিন। সময়টা ভালো কাটবে। দৌড়ানো আপনার দেহ এবং মনের জন্য অগণিত উপকার বহন করে। তবে নতুন ফিটনেস পদ্ধতি শুরু করার আগে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।

রান্না করুন

নতুন নতুন রান্নাও করতে পারেন। আপনার শখগুলোর মধ্যে র‌্যাঙ্কিংয়ে সবচেয়ে দরকারি হতে পারে এটি। এটি আপনার পছন্দ মতো সহজ বা জটিলও হতে পারে। নতুন রেসিপি নিয়ে রান্না করুন। নিজে উপভোগ করবেন। পাশাপাশি পরিবারকেও খুশি করতে সহজ হবে।

ফুলে সাজিয়ে নিন

ঘরে ফুল দিয়ে সাজাতে পারেন। ফুলগুলো কীভাবে সাজানো যায় তা শিখতে পারেন। সাজানো ফুল দিয়ে নিজের টেবিলে আপনার ব্যক্তিত্ব প্রদর্শন করতে পারেন।  আপনার প্রচুর অর্থও সাশ্রয় হবে।

কারুশিল্পের সৃজনশীল হোন

নিজের কর্মশালা শুরু করতে পারেন। যারা চারুকলা এবং কারুশিল্প উপভোগ করেন তারা বিশেষত কাঠের কাজ পছন্দ করতে পারেন। কাঠের সরঞ্জামগুলো দিয়ে পছন্দমতো কারুশিল্প তৈরি করে নিন।

সাঁতার শিখুন

সাঁতার শিখতে পারেন। এতে শরীরের ফিটনেস থাকবে। ভালো সাতারু হতে নিজেকে চ্যালেঞ্জের মুখে ঠেলে দিন। সাঁতার সঙ্গী থাকলে প্রতিযোগিতাও করতে পারেন। এতে মানসিক চাঞ্চল্য ফিরে আসবে।

ফ্যাশনে কাজ শুরু করুন

ফ্যাশন নিয়ে কাজ করতে পারেন। আপনি ফ্যাশন সচেতন হলে এই শখটি আপনাকে আনন্দ দিবে। নিজের জন্য, কিংবা পরিবারের জন্য ফ্যাশনেবল পোশাক তৈরি বেশ উপভোগ করবেন। এই শখকে প্রফেশনালিও নিতে পারে। অনলাইনে ক্ষুদ্র পরিসরে ব্যবসা শুরু করতে পারেন নিজের ডিজাইন করা সৃজনশীল পোশাকে।

পোষা প্রাণী

পছন্দের প্রাণিকে ঘরে নিয়ে আসুন। পোষা প্রাণির সঙ্গে সময় কাটাতে, তার যত্ন নেওয়ার মুহূর্তগুলো উপভোগ করবেন।

যোগব্যয়াম

যোগ ব্যয়াম শুরু করতে পারেন। এটি আপনার ধ্যান-ধারণা, মানসিক ও শারীরিক অবস্থা উন্নতি করে। শখের তালিকায় এটি বেশ উপকারি।

ঘুরে বেড়ান

ঘুরে বেড়াতে পারেন। এরজন্য একটি ডায়েরি বানিয়ে নিন। কোথায় কোথায় গিয়েছেন, আর কোথায় যাবেন এর তালিকা টুকে রাখতে পারেন এই ডায়েরিতে। সে সঙ্গে দেশ বিদেশ ঘুরে বেড়ানোর স্মৃতিগুলোও লিখে রাখতে পারেন। পাহাড়ের চূড়ায় কিংবা সমুদ্রের মাঝে ঘুরে বেড়ানো উপলব্ধিতা সত্যিই আনন্দের।

খেলাধুলা করুন

খেলায় আগ্রহী হয়ে উঠতে পারেন। যেকোন খেলায় মনোনিবেশ করে নিজেকে সেরা খেলোয়াড় বানিয়ে নিন।

সংগ্রহ করুন

ভিন্ন, নতুন কিছু সংগ্রহে রাখতে পারেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুদ্রা, স্ট্যাম্পসহ অন্য যেকোনো কিছু সংগ্রহে রাখতে পারেন।