• ঢাকা
  • রবিবার, ২২ মে, ২০২২, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: মে ৯, ২০২১, ১০:৩৮ এএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ৯, ২০২১, ০৬:৩০ এএম

চিরন্তন ভালোবাসা ‘মা‍‍’

চিরন্তন ভালোবাসা ‘মা‍‍’

৯ মে রোববার, বিশ্ব মা দিবস। যদিও মাকে ভালোবাসতে কোনো বিশেষ দিনের প্রয়োজন হয় না।  ‘মা’ শব্দটি ছোট হলেও এর বিশালতা আকাশসমান কিংবা তারও বেশি। মা বলে ডাকলেই এক অদ্ভূত আত্মতৃপ্তি মেলে। সন্তানের চির আশ্রয়স্থল হচ্ছে মা। যার ভালোবাসা আর আদরে একটু একটু করে পূর্ণাঙ্গ মানুষ হয়ে উঠি আমরা। যার ভালোবাসার তুলনা হয় না, বিকল্প হয় না। নিঃশর্ত, নিঃস্বার্থ ভালোবাসায় আমৃত্যু আগলে রাখেন যিনি, তিনি হলেন মা।

মাকে ভালোবাসতে বিশেষ দিনের প্রয়োজন হয় না, তবু সারা বিশ্বে সবাই মাকে শ্রদ্ধা জানাতে পালন করা হয় মা দিবস। এই দিনটিতে মায়ের প্রতি ভালোবাসার প্রকাশ করেন সন্তানরা। হয়তোবা কাজের ব্যস্ততায় বা বন্ধুদের ভিড়ে মাকে ভালোবাসি কথাটা বলা হয় না। এই দিনটির উদ্দেশ্যই এটি। সন্তানরা হাজারো ব্যস্ততার ভিড়েও মায়ের প্রতি ভালোবাসার প্রকাশ করবে। মনে করিয়ে দেবে, মা জীবনের অমূল্য এক অংশ। 

প্রতিবছর মে মাসের দ্বিতীয় রোববার মা দিবস পালন হয়। সেই অনুযায়ী এ বছর ৯ মে দিবসটি সারা বিশ্বে পালন হচ্ছে।

সর্বপ্রথম প্রাচীন গ্রিসে পালন হয় মা দিবস। আধুনিককালে দিবসটির প্রবর্তন করেন মার্কিন নাগরিক আনা মারিয়া রিভস জারভিস।

১৯০৫ সালের কথা, আনা মারিয়া রিভস জারভিসের মা আনা জারভিস মারা যান। পরবর্তী সময়ে মারিয়া রিভস জারভিস মায়ের কাজকে স্মরণীয় করে রাখার উদ্যোগ নেন। তিনি স্কুলে প্রথম এই দিনটি মাতৃদিবস হিসেবে পালন করেন। ১৯০৭ সালের এক রোববার অ্যানা মারিয়া স্কুলের এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। সেখানে মায়ের জন্য একটি দিবসের গুরুত্ব ব্যাখ্যা করেন তিনি। এরপরই ১৯১৪ সালের ৮ মে মার্কিন কংগ্রেস প্রথম দিবসটি স্বীকৃতি দেয়। সেই থেকেই দিবসটি বেশ ঘটা করেই পালন করছে বিশ্ব। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়।

করোনা মহামারির কারণে দিবসটি নিয়ে তেমন কোনো আনুষ্ঠানিকতা দেখা না গেলেও, প্রতিটি সন্তান ঘরেই মায়ের  সঙ্গে সময় কাটিয়ে দিনটিকে উপভোগ করবেন। 

জন্মদাত্রী মাকে স্মরণ করে সারা বিশ্বে মা দিবস উপলক্ষে কবিতায়, গান, শব্দে-উপমায় ভালোবাসার প্রকাশ ঘটে। সোশ্যাল মিডিয়ায় মায়ের সঙ্গে ছবি দিয়ে, মাকে উদ্দেশ করে ভালোবাসার প্রকাশ করেন অনেকে। আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়ে মায়ের প্রতি ভালোবাসার, মায়ের অবদানের কথা স্মরণ করেন সন্তানরা। অনেকে আবার মায়ের পছন্দের উপহার দিয়ে ভালোবাসার প্রকাশ করবেন।

যে মা সন্তানকে একটি পৃথিবী উপহার দিয়েছে, সেই মায়ের তুলনায় যেকোনো উপহারই অনেক ছোট মনে হতে পারে। কিন্তু মায়ের জন্য় সন্তানের হাসিমুখটিই হয় সবচেয়ে বড় উপহার। মা দিবসের এই দিনটি পৃথিবীর সকল মায়ের প্রতি রইল চিরন্তন ভালোবাসা ও বিনম্র শ্রদ্ধা।