• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮
প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২১, ০৩:০৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৭, ২০২১, ০৪:১৮ পিএম

ভিড়েও আকর্ষণীয় রাখুন নিজেকে

ভিড়েও আকর্ষণীয় রাখুন নিজেকে

রূপচর্চায় মেয়েদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ছেলেরাও এখন বেশ এগিয়ে। ফ্যাশনেও ছেলেরা কিন্তু কম নয়। নিজেদের কনফিডেন্ট ও আকর্ষণীয় করে উপস্থাপনে তারাও কিন্তু এখন বেশ সচেতন। পুরুষের স্মার্টনেস কীভাবে আসবে, কোন পোশাকে তারা নিজেদের আকর্ষণীয় করে তুলতে পারবেন, তা নিয়ে থাকে নানা প্রস্তুতি। অনেকে তো কীভাবে প্রস্তুতি নিতে হয় এই প্রশ্নেই ঘুরপাক খান। তাদের জন্য থাকছে কিছু টিপস। কীভাবে ছেলেরা শত মানুষের ভিড়েও নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলবেন, তা জানাব আজকের আয়োজনে।


পোশাকে নজর দিন

প্রথমেই মানানসই পোশাক নির্বাচন করুন। নিজের শরীরের সঙ্গে সামঞ্জস্য় রেখেই পোশাক পরা উচিত। বিষয়টি মাথায় রেখেই পোশাক নির্বাচন করুন। সঠিক পোশাকে আপনি আকর্ষণীয় হয়ে উঠবেন। ব্র্যান্ড, নন ব্র্যান্ড যা-ই হোক, যে পোশাকটি আপনাকে মানাচ্ছে, শরীরের ফিটনেসের সঙ্গে সামঞ্জস্য হচ্ছে ঠিক তাই পরুন।


ক্যাজুয়েল লুক

নিজেকে ক্যাজুয়েল লুক দিতে চাচ্ছেন? সব সময় সাদা শার্ট ও ব্লু জিনস সঙ্গে পায়ে একটি স্নিকার পরুন। এই পোশাকই আপনাকে আকর্ষণীয় করে তুলতে পারে। চাকচিক্য পোশাক বর্জন করাই ভালো। ফ্যাশনেবল কোনো পোশাক যদি আপনাকে না মানায়, তা পরবেন না। বরং সহজ, মার্জিত পোশাকেই নিজের ব্যক্তিত্বকে প্রকাশ পেতে দিন।

ম্যাচিং পোশাক

ম্যাচিং পোশাক নির্বাচন করুন। নিজেকে ফুটিয়ে তুলতে এটি দারুণ উপায়। টি-শার্ট পরলে সঙ্গে জিনস পরুন। আর ফরমাল শার্টের সঙ্গ অবশ্যই রাখুন ফরমাল প্যান্ট। সহজেই ব্যক্তিত্ব ফুটে উঠবে। মিস ম্যাচ হলেই আপনাকে বিব্রত হতে হবে।

জুতা নির্বাচন করুন

মনে রাখবেন, ছেলেদের ব্যক্তিত্বের প্রকাশ কিন্তু পোশাকের সঙ্গে মানানসই জুতার মধ্যেও প্রকাশ পায়। তাই এবার জুতাতে নজর দিন। ক্যাজুয়েল লুক কিংবা ফরমাল লুকের সঙ্গে মানানসই জুতা বেছে নিন। এক্ষেত্রে একইভাবে নিজের ব্যক্তিত্বকে সামনে রাখুন।

ঘড়ি পরুন

পোশাক, জুতোর সঙ্গে ঘড়ি কিন্তু পুরুষের ব্যক্তিত্বের আরেক ধারক। ভালো মানের ঘড়ি পরুন। অনেকে শখের বশেই ঘড়ির বিভিন্ন কালেকশন রাখেন। তারা পছন্দমতো মানানসই ঘড়ি পরে নিন। বর্তমানে অনেক স্মার্ট ওয়াচ বেরিয়েছে। পছন্দমতো কিনে নিতে পারেন। অনেকেই মোবাইল থাকায় ঘড়ি পরার অভ্যাসটা চলে গেছে। তারা শুধু বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বা অফিসের ঘড়ি ব্যবহার করতে পারেন।

অস্বস্তিকর পোশাক বাদ দিন

যে পোশাকে আরামবোধ হবে না, কিংবা যে পোশাক পরার পর আপনার অস্বস্তিবোধ হবে এমন পোশাক পরবেন না। কেননা, ওই পোশাক পরে আপনি অস্বস্তিবোধ করলে তা আপনার ব্যক্তিত্বে ফুটে উঠবে। মন, মেজাজও খারাপ থাকবে।