• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই, ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯
প্রকাশিত: মে ৩১, ২০২২, ০৮:২৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ৩১, ২০২২, ০২:২৬ পিএম

নারীদের জন্য সকাল পুরুষদের জন্য বিকাল উপযুক্ত সময়

নারীদের জন্য সকাল পুরুষদের জন্য বিকাল উপযুক্ত সময়

এতোদিন আমরা জেনে এসেছি সুস্থতার জন্য ব্যায়াম গুরুত্বপূর্ণ, তা যেকোনো সময়ই করা হোক না কেন। কিন্তু সবচেয়ে বেশি উপকার পেতে নারী ও পুরুষের জন্য সময় ভিন্ন হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন এক গবেষণায় এমনটাই উঠে এসেছে। ফ্রন্টিয়ার্স ইন ফিজিওলজিতে প্রকাশিত হয়েছে ওই গবেষণার ফলাফল।

গবেষণার ফলাফল অনুযায়ী, নারীদের জন্য ব্যায়ামের উপযুক্ত সময় সকাল। এই সময়ে ব্যায়াম করলে তাদের পেটের চর্বি বেশি কমে। অন্যদিকে, পুরুষের ক্ষেত্রে বিকেলটাই বেশি উপযুক্ত সময়।

গবেষকরা বলছেন, দুই লিঙ্গের মানুষের হরমোন, জৈবিক চক্র, ঘুমাতে যাওয়া এবং ঘুম থেকে ওঠার চক্রের ভিন্নতা এই ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।
 
কর্মক্ষম ও সুস্বাস্থ্যের অধিকারী এমন ৩০ জন পুরুষ ও ২৬ জন নারীকে নিয়ে এই গবেষণা করা হয়। তাদের বয়স ২৫-৫৫ বছরের মধ্যে। ১২ সপ্তাহ ধরে তাদের ফিটনেস প্রোগ্রাম- স্ট্রেচিং, স্প্রিং, প্রতিরোধ ও সহনশীলতার প্রশিক্ষণের ওপর পর্যবেক্ষণ চালানো হয়েছে।

তাদের মধ্যে একটি দল সকাল সাড়ে ৮টার আগে এক ঘণ্টা ব্যায়াম করেছেন। অন্য দলটি বিকেল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৮টার মধ্যে একই ধরনের ব্যায়াম করেছেন। সকল অংশগ্রহণকারীকে একই ধরনের বিশেষ খাবারও খেতে দেওয়া হয়েছে।

গবেষকরা গবেষণার সময় প্রত্যেকের রক্তচাপ, শরীরের চর্বি, সেইসঙ্গে তাদের নমনীয়তা, শক্তি এবং শুরু ও শেষের দিকে অক্সিজেন ব্যবহার করে মাংসপেশির শক্তি উৎপাদন ক্ষমতা পরীক্ষা করেন।

গবেষণায় দেখা গেছে, যখনই ব্যায়াম করুক না কেন ১২ সপ্তাহ ধরে গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের সামগ্রিক স্বাস্থ্য এবং কর্মক্ষমতা উন্নত হয়েছে।

নিউইয়র্ক রাজ্যের স্কিডমোর কলেজের স্বাস্থ্য ও মানব শারীরবৃত্তীয় বিজ্ঞানের প্রধান গবেষণা লেখক এবং অধ্যাপক ডঃ পল আর্সেরিও বলেন, ‘ব্যায়ামের জন্য সর্বোত্তম সময় হল এমন সময় যখন আপনি তা করতে পারেন এবং একে আপনার সময়সূচীর সঙ্গে মানানসই করতে পারেন।

তবে তিনি বলেন, এই গবেষণা থেকে প্রমাণ মিলেছে, ব্যায়াম করার আদর্শ সময় নারী এবং পুরুষদের জন্য আলাদা।

 
সকালে নাকি বিকেলে?

ডঃ আর্সেরিও বলেন, গবেষণা থেকে প্রমাণ পাওয়া গেছে, যে নারীরা তাদের শরীরের মাঝখানের চর্বি কমাতে এবং তাদের রক্তচাপ কমাতে আগ্রহী তাদের জন্য সকালে ব্যায়াম করাই সবচেয়ে উপকারী।

এটা গুরুত্বপূর্ণ, কারণ পেট বা তলপেটের চর্বি যকৃত সহ শরীরের অভ্যন্তরীণ অঙ্গগুলোর চারপাশকে ঘিরে ধরে এবং তা বিপজ্জনক হতে পারে।

তবে, তিনি এও বলেন, যে নারীরা তাদের শরীরের ওপরের অংশের পেশীশক্তি বাড়ানোর পাশাপাশি তাদের সামগ্রিক মেজাজ-মর্জি এবং খাবারের রুচি বাড়ানোর চেষ্টা করছেন তাদের সন্ধ্যায় ব্যায়াম করা উচিৎ।

গবেষণায় অংশগ্রহণকারী পুরুষরা দিনের বেলায় ব্যায়াম করার সময় কম সংবেদনশীল ছিলেন। সকালে এবং সন্ধ্যায় তাদের শক্তি বাড়তো।

তবে ডা. আর্সেরিও বলেন, ’কিন্তু হৃদপিণ্ড ও বিপাকীয় স্বাস্থ্যের পাশাপাশি মানসিক সুস্থতা বাড়ানোর জন্য আগ্রহী পুরুষদের জন্য ব্যায়ামের জন্য আদর্শ সময় দেখা গেছে বিকেল বেলা’।

বিপাকীয় স্বাস্থ্যের উন্নতির অর্থ হল স্থুলতা, টাইপ টু ডায়াবেটিস, হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের মতো সমস্যার ঝুঁকি হ্রাস করা।

ব্যায়ামের সময় পুরুষ এবং নারীদের প্রতিক্রিয়া কেন এত আলাদা ছিল তা ঠিক পরিষ্কার নয়। গবেষকরা বলছেন, এই বিষয়ে আরও ভালোভাবে জানতে আরও গবেষণা প্রয়োজন।

গবেষকরা বলছেন, নারীরা সকালে শরীরের বাড়তি চর্বি বেশি পোড়াতে পারেন। কারণ তাদের পেটে অতিরিক্ত চর্বি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। শরীরের অভ্যন্তরীণ ছন্দও এর একটি কারণ হতে পারে।

এই গবেষণায় স্বাস্থ্যকর ওজনের লোকদের ওপরই পর্যবেক্ষণ চালানো হয়েছে। তবে গবেষকরা বলছেন, অতিরিক্ত ওজন বা স্থূলকায় লোকদের ক্ষেত্রেও এই গবেষণার ব্যায়ামসুচি কাজ করতে পারে।

ডা. আর্সেরিও বলেন, ‘এ থেকে তাদের উপকৃত হওয়ার সুযোগ বেশি’।