• ঢাকা
  • রবিবার, ২৩ জুন, ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১
প্রকাশিত: মার্চ ১, ২০২৩, ১১:৩৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ১, ২০২৩, ১১:৩৪ পিএম

বৃহস্পতি ও শুক্রের চমক দেখছে বিশ্ব

বৃহস্পতি ও শুক্রের চমক দেখছে বিশ্ব
ছবি ● প্রতীকী

মহাজাগতিক দারুণ এক দৃশ্যের  সাক্ষী হচ্ছে বিশ্ব। রাতের আকাশে বৃহস্পতি ছুঁয়ে দিচ্ছে শুক্রকে।

বুধবার (১ মার্চ) খুব কাছাকাছি অবস্থান করছে বৃহস্পতি ও শুক্র গ্রহ। রাতের আকাশেই দেখা মিলছে এই বিরল দৃশ্যের। 

সূর্যাস্তের পর পশ্চিম আকাশের দিকে তাকালেই দেখা যাচ্ছে বৃহস্পতি ও শুক্র। আকাশে মেঘ না থাকলে কাছাকাছি আসার দৃশ্য খালি চোখেই দেখতে পারছেন যে কেউ। তবে আরও পরিষ্কার দেখতে হলে দূরবীন অথবা টেলিস্কোপ ব্যবহার করতে হবে।

বছরের শীতল ও উষ্ণতম মাসগুলোর মাঝামাঝি সময়কে বলা হয়ে থাকে ‘মিটিওরলজিক্যাল বসন্ত’। মিটিওরলজিক্যাল বসন্ত বলতে সাধারণত ১ মার্চ থেকে ৩১ মে পর্যন্ত সময়কে বলা হয়।

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসার মতে, সৌরজগতের সবচেয়ে বড় গ্রহ বৃহস্পতি ও সবচেয়ে উজ্জ্বল গ্রহ শুক্র পরস্পরের কাছাকাছি আসার দৃশ্যটি রাতের আকাশে এক অন্যরকম আভা ছড়াবে। এসময় বৃহস্পতির সবচেয়ে উজ্জ্বল চারটি নক্ষত্রও দেখা যাবে আকাশে।

নাসা বলছে, সৌরজগতের গ্রহগুলো সূর্যের চারদিকে একই সমতলে বিভিন্ন কক্ষপথে ক্রমাগত ঘুরতে থাকার কারণে কখনও কখনও একই সরলরেখায় একাধিক গ্রহকে দেখা যায়। তখন মনে হয় গ্রহগুলো পরস্পরের কাছাকাছি চলে এসেছে, অথবা পরস্পরকে ছুঁয়ে ফেলছে। কিন্তু বাস্তবে গ্রহগুলো একে অপর থেকে অনেকটাই দূরেই অবস্থান করবে।

কয়েক সপ্তাহ ধরেই বৃহস্পতি ও শুক্রের পরস্পরের কাছাকাছি আসার বিষয়টি নজরে এসেছে। তবে যতই কাছাকাছি তাদের দেখা যাক না কেন, মহাকাশে পরস্পর থেকে চারশো মিলিয়ন মাইল দূরত্বে অবস্থান করছে এই গ্রহ দুইটি। বিবিসি।

জাগরণ/বিজ্ঞানওপ্রযুক্তি/এসএসকে