• ঢাকা
  • বুধবার, ১৯ জুন, ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: জুন ১২, ২০১৯, ০৬:৫০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ১২, ২০১৯, ০৬:৫০ পিএম

আফ্রিদির ‘চড়-থাপ্পড়ে’ স্পট ফিক্সিংয়ের কথা স্বীকার করেন আমির 

ক্রীড়া ডেস্ক
আফ্রিদির ‘চড়-থাপ্পড়ে’ স্পট ফিক্সিংয়ের কথা স্বীকার করেন আমির 

ম্যাচ গড়াপেটায় পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের নাম নতুন কিছু নয়। বহু আগে থেকেই টাকার বিনিময়ে ম্যাচ-ফিক্সিং করে আসছে সেদেশের ক্রিকেটাররা। তবে ২০১০ সালে পুরো ক্রিকেট বিশ্বকেই নাড়িয়ে দিয়েছিল মোহাম্মদ আমির, আসিফ ও সালমান বাট। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে তুলকালাম কাণ্ড বাঁধিয়ে দেয় তারা। 

এবার সেই কলংকজনক ঘটনার নতুন এক তথ্য ফাঁস করলেন পাকিস্তান দলের সাবেক ক্রিকেটার আবদুল রাজ্জাক। সম্প্রতি জিএনএন টিভিকে সাক্ষাৎকার দেন তিনি। সেখানে সাবেক এই অলরাউন্ডার জানান, দলের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদির চড় খেয়ে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের কথা স্বীকার করেছিলেন তৎকালীন দলের তরুণ ও উদীয়মান পেসার মোহাম্মদ আমির। 

আবদুল রাজ্জাক বলেন, ‘আফ্রিদি আমাকে রুম থেকে বের হয়ে যেতে বলেছিল। এর কিছুক্ষণ পর আমি চড়ের শব্দ শুনতে পাই। তখনই ম্যাচ ফিক্সিংয়ের সব কথা বলে দেয় আমির।’  

এদিকে সেই ঘটনার মূল হোতা বাটকে নিয়েও বেশ কিছু বিস্ফোরক তথ্য জানিয়েছেন পাকিস্তানের হয়ে ৪৬ টেস্ট ও ২৬৫ ওয়ানডে খেলা রাজ্জাক। তার মতে বহু আগে থেকেই ধারাবাহিকভাবে ম্যাচ ফিক্সিং করে আসছিলেন বাট, ‘আমি আফ্রিদির সঙ্গে একবার এই ব্যাপারে আমার চিন্তার কথা জানাই। আফ্রিদি আমাকে বলেছিল তার সম্পর্কে এটা আমার ভুল ধারনা। সবকিছু স্বাভাবিক আছে। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আমি যখন ওর সঙ্গে ব্যাটিং করছিলাম, তখন আমি লক্ষ্য করি ও ইচ্ছে করেই ডট বল খেলছে। আমি তখনই বুঝতে পেরেছি, ও দলকে হারের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।’ 

রাজ্জাক আরও বলেন, ‘আমি ওকে সিঙ্গেলস নিতে বলছিলাম। কিন্তু সে আমার উপদেশ কানেই তোলেনি। আমি আশ্চর্য হয়েছিলাম যখন দেখি সে আমার কথা গ্রাহ্যই করছিল না। সে আমার উপদেশ উপেক্ষা করে প্রতি ওভারে ২-৩ বল ডট খেলে আমাকে স্ট্রাইক দিচ্ছিল। এতে আমার উপর চাপ বেড়ে যাচ্ছিল এবং বড় শট খেলতে গিয়ে আমি আউট হয়ে গিয়েছিলাম।’ 

এসএইচএস   

Space for Advertisement