• ঢাকা
  • শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯
প্রকাশিত: আগস্ট ১১, ২০২১, ০৫:১৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : আগস্ট ১১, ২০২১, ০৫:১৬ পিএম

এটিপি টরেন্টো মাস্টার্স থেকে নাদালের নাম প্রত্যাহার 

এটিপি টরেন্টো মাস্টার্স থেকে নাদালের নাম প্রত্যাহার 
রাফায়েল নাদাল। ফাইল ফটো

পায়ের ইনজুরির কারণে এটিপি টরেন্টো মাস্টার্স থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন রাফায়েল নাদাল। এর ফলে ইউএস ওপেনে তার খেলা নিয়ে অনেকেই শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। 

কানাডার এই টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার লয়েড হ্যারিসের বিপক্ষে  নাদালের কোর্টে নামার কথা ছিল। গত সপ্তাহে ওয়াশিংটনে তৃতীয় রাউন্ডে এই হ্যারিসের কাছে পরাজিত হয়ে বিদায় নিতে হয়েছিল নাদালকে। 

২০০৫ সাল থেকে বাম পায়ের যে ইনজুরি দেখা দিয়েছিল সেটাই ফ্রেঞ্চ ওপেন থেকে ভোগাচ্ছে বলে নাদাল জানিয়েছেন। আগামী ৩০ আগস্ট থেকে শুরু হওয়া বছরের শেষ গ্র্যান্ড স্ল্যাম ইউএস ওপেনেও এখন তার খেলা হুমকির মুখে পড়েছে। পুরো ক্যারিয়ারজুড়েই নাদাল শারিরীক বিভিন্ন সমস্যার সাথে লড়াই করে  এগিয়ে নিয়ে গেছেন। এর মধ্যে তিনি একাধিকবার  হাঁটুর সমস্যায়  পড়েছেন। 

বিশ্বের তিন নম্বর খেলোয়াড় নাদাল জানিয়েছেন, ‘গত দুই মাস যাবত আমি এই সমস্যায় ভুগছি। অবশ্যই কানাডায় আমি যে সাফল্য পেয়েছি তারপর এখানে খেলতে না পারাটা সত্যিই হতাশার। মায়োর্কায় ফিরে গিয়ে আগে নিজেকে ফিট করে তুলতে হবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে টেনিসটাকে উপভোগ করা। কিন্তু এই মুহূর্তে সেটাই হচ্ছে না।

এর আগে পাঁচবার কানাডিয়ান শিরোপা জিতেছেন ৩৫ বছর বয়সী নাদাল। ফ্রেঞ্চ ওপেনের সেমিফাইনাল নোভাক জকোভিচের কাছে পরাজিত হওয়ার পর নাদাল উইম্বলডন ও টোকিও অলিম্পিক থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন। এই ইনজুরির কারণে আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হওয়া সিনসিনাটি মাস্টার্স থেকেও তার নাম প্রত্যাহারের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যেই এই আসর থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছেন বিশ্বের এক নম্বর খেলোয়াড় নোভাক জকোভিচ। তার পর নাম প্রত্যাহারের ঘোষনা দিয়েছেন সেরেনা ও ভেনাস উইলিয়ামস। ইউএস ওপেনের প্রস্তুতিমূলক এই হার্ডকোর্ট মাস্টার্স টুর্নামেন্টে থেকে এর আগেই না খেলার ঘোষনা দিয়েছিলেন রজার ফেদেরার। শীর্ষ এই খেলোয়াড়দের না খেলার সিদ্ধান্তে টুর্নামেন্টের আকর্ষন অনেকাংশেই কমে গেছে। সেরেনা ও ভেনাসের সাথে তরুন মার্কিন খেলোয়াড় সোফিয়া কেনিনও না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। 

দুইবারের সিনসিনাটি বিজয়ী সেরেনা জানিয়েছেন, গত মাসে উইম্বলডনে পায়ের ইনজুরিতে পড়ার  এখনো পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠতে পারেননি। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘দুর্ভাগ্যবশত ওয়েস্টার্ন ও সাউদার্ন ওপেনে আমি খেলতে পারছি না। পায়ের ইনজুরি কাটিয়ে এখনো পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠতে পারিনি। সিনসিনাটিতে আমি আমার সমর্থকদের অনেক মিস করবো। আগামী বছর আবারো এখানে ফিরে আসার আশা রাখছি।’

ভেনাসের নাম প্রত্যাহারের কারণ সম্পর্কে এখনো কিছু জানা যায়নি। তবে পায়ের ইনজুরির কারণে কেনিন খেলতে পারছেন না বলে নিশ্চিত করেছেন।