• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ মে, ২০২১, ৩০ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ৯, ২০২১, ০৮:২৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ৯, ২০২১, ০৮:২৫ পিএম

করোনা উপেক্ষা করে বইমেলায় উপচে পড়া ভিড়

করোনা উপেক্ষা করে বইমেলায় উপচে পড়া ভিড়

শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় পাঠক-দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। করোনা সংক্রমণ বেড়ে গেলেও তা উপক্ষো করে তাদের আসতে দেখা যায়।

বিশেষ করে বিকেল তিনটার পর থেকে বইপ্রেমীদের ঢল নেমেছিল বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসহ পুরো মেলা প্রাঙ্গণে।

মেলার উভয় প্রাঙ্গণে দীর্ঘ লাইন দিয়ে পাঠক-দর্শনার্থীদের ঢুকতে দেখা যায়। শিশু থেকে বুড়ো সব বয়সী মানুষের প্রাণের উচ্ছ্বাসও ছিল দেখার মতো। মেলা শেষে বিকেল ৫টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় কিছুক্ষণের জন্য যানজট লেগে যায়। 

আগত দর্শনার্থীরা সবাই যে বই কেনার জন্য এসেছেন তা নয়। ছুটির দিন হওয়ায় অনেকে মেলায় ঘুরতে এসেছেন পরিবার ও বন্ধু বান্ধব নিয়ে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনেক দর্শনার্থীকে আড্ডা দিতে দেখা গেছে। প্রবেশমুখে সবার মুখে মাস্ক থাকলেও মেলার ভেতরে মাস্ক খুলে ফেলতে দেখা যায়। সামাজিক দুরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধি মানতে দেখা যায়নি অনেক দর্শনার্থীদের।

বিক্রেতারা জানান, মেলায় আজকে দর্শনার্থী বাড়লেও বিক্রির অবস্থা সে হিসেবে ভালো না। তবে ছুটির দিনেও অনেক পাঠক তাদের পছন্দের বই কিনতে দেখা গেছে। শেষ কয়েকদিন মেলায় ক্রেতার সংখ্যা আরও বাড়বে।

পার্ল পাবলিকেসন্সের বিক্রেতা মেঘ রাজা বলেন, আজ মেলায় ক্রেতার সংখ্যা বেড়ে গেছে। বেচাকেনাও আগের চেয়ে ভালো। উপন্যাস-গল্প ভালো চলছে। বিশেষ করে কিশোর পাঠকরা আমাদের প্রকাশনী থেকে বেশি বই কিনছে।

দিব্য প্রকাশনীর মার্কেটিং ম্যানেজার খায়রুল আনাম সাজু বলেন, শুরু থেকেই এবার মেলা জমেনি। শেষ শুক্রবার হিসেবে অনেকে আসলেও আমরা ধারণা করেছিলাম বিক্রিও বাড়বে। কিন্তু সে অনুযায়ী আমরা সাড়া পাইনি। তিনি আশা করেন আগামী কয়েকদিন মেলায় ভালো বিক্রি হবে।

আগামী প্রকাশনীর বিক্রেতা আজমীন আক্তার বলেন, মেলায় আজ অনেক মানুষ এসেছেন কিন্তু সবাই যে বই কিনছেন ব্যাপারটা এমন না। আগের চেয়ে আজকে ভালো বিক্রি হয়েছে।

মা সেরা প্রকাশনীর বিক্রেতা আশাপূর্ণা মুন বলেন, শুক্রবার হিসেবে মানুষ এসেছেন কিন্তু বই তেমন একটা কিনছেন না।

বইমেলায় আসা অলিউর রহমান বলেন, তুলনামূলকভাবে আজকে অন্যান্য দিনের চেয়ে বেশি লোকজন দেখা গেছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সবাইকে বইমেলায় আসা ও বই কেনা উচিত।

মেলায় মেয়েকে নিয়ে এসেছেন আয়েশা সিদ্দিকা। তিনি বলেন, বইমেলা নিয়ে আবেগ অনুভূতি বোঝানো যাবে না। আজকে ছুটির দিন হওয়ায় বাচ্চাকে নিয়ে মেলায় এসেছি। ঘুরে দেখছি যে বই ভালো লাগে সে বইগুলো কিনব।

অমর একুশে বইমেলা ২০২১-এর ২৩ তম দিনে বেলা ১২টায় মেলা শুরু হয়ে শেষ হয় বিকেল ৫টায়। মেলায় আজ নতুন বই এসেছে ৮৮টি। গল্প-১০, উপন্যাস-৯, প্রবন্ধ-৬, কবিতা-৩৪, গবেষণা-১, ছড়া-১, শিশুসাহিত্য-২, জীবনী-৩, মুক্তিযুদ্ধ-৪, নাটক-১, বিজ্ঞান-২, ভ্রমণ-১, ইতিহাস-২, রাজনীতি-১, বঙ্গবন্ধু-৩, রম্য/ধাঁধা-২, ধর্মীয়-১, সায়েন্স ফিকশন-২, অন্যান্য-৩টি বই।