• ঢাকা
  • শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৫, ২০২৩, ১২:২১ এএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৫, ২০২৩, ১২:২১ এএম

মঙ্গল শোভাযাত্রায় হট্টগোল

মঙ্গল শোভাযাত্রায় হট্টগোল
ছবি ● সংগৃহীত

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন (ডিএসএ) বাতিলের দাবি সংবলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নেয়ায় বাম ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীদের দুই দফায় বাধা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে আয়োজক কমিটির বিরুদ্ধে। এ সময় তাদের প্ল্যাকার্ডও ভেঙে দেয়া হয়।

শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) চারুকলা অনুষদের সামনে শোভাযাত্রায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

গণতান্ত্রিক ছাত্র জোটের নেতৃত্বে ‘ডিএসএ বাতিল করো’, ‘নববর্ষে পরাধীনতার শিকল ভাঙো’, ‘মুখ বন্ধ করে দেয়া কি স্বাধীনতা?’, ‘চাল জোটে না ইলিশ রুই কই পাবো?’ প্রভৃতি স্লোগান লিখিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেন বামধারার ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা। সেখানে মঙ্গল শোভাযাত্রা উদযাপন আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক ও ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক ওম প্রকাশের নেতৃত্বে তাদের বাধা দেয়া হয়। এ সময় শোভাযাত্রায় হট্টগোল সৃষ্টি হয়।

এরপর বাম ছাত্র নেতারা রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বিরোধী গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করেন। সেখানেও বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টররা তাদের বাধা দেন। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এ সময় প্রক্টর অধ্যাপক মাকসুদুর রহমান বিনা অনুমতিতে তাদের কর্মসূচি না পালনের কথা বলেন। এরপর তিনি দ্রুত কর্মসূচি শেষ করার কথা বলে চলে যান। 

গণতান্ত্রিক ছাত্র কাউন্সিলের সভাপতি ছায়েদুল হক নিশান অভিযোগ করে বলেন, ‘শোভাযাত্রায় ডিএসএ বাতিলের নানা প্ল্যাকার্ড নিয়ে অংশগ্রহণ করলে চারুকলা অনুষদের ছাত্রলীগ নেতা ওম প্রকাশ আমাদের প্ল্যাকার্ড ভেঙে দেয়। আমাদের বাধা দেয়। এরপর বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এমনকি আমাদের নারী কর্মীদের গায়েও হাত তুলেছে।’

প্রক্টর অধ্যাপক মাকসুদুর রহমান  বলেন, ‘আমরা তাদের বাধা দিইনি। তাদের বলেছি, এ ধরনের গণস্বাক্ষর করতে হলে প্রক্টরের সঙ্গে আলাপ করে নিতে হয়। বাধা দিলে তো তারা (কর্মসূচি) করতে পারত না।’

জাগরণ/এসএসকে