• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ মে, ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: এপ্রিল ২৩, ২০২১, ০৫:৫৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ২৩, ২০২১, ১২:১১ পিএম

বই আলোচনা

গল্পের ভেতরে আরেক গল্পের বাস

গল্পের ভেতরে আরেক গল্পের বাস

“…রুকসি আমেরিকা এসে এতো বদলে গেছে যে, নিজেকে ক্লাবের নগ্ন ডান্সার বানালো। তার কাজল কালো আঁখি নেই এখন, লম্বা এলোকেশী চুল কেটে ফেলেছে, চার ইঞ্চি চোখা হিল পরে , আর্টিফিশিয়াল দামি নখ লাাগিয়েছে, লেদার স্কার্ট , ট্যাঙ্ক টপ-ড্রেস ও বিগ বুট পরে। নগ্ন ডান্সার হওয়ার জন্য চার-পাঁচ দিন যৌন আবেদনময়ী অঙ্গভঙ্গি করার ডান্স ক্লাস করতে হয়েছে তাকে। সে ম্যানহাটনের নুড ক্লাবে ডান্স করে মিউজিকের তালে তালে। ঘণ্টায় চল্লিশ ডলার। তার কাস্টমারদের দেয়া টিপস দুই-তিনশত ডলার। আট ঘন্টা কাজ করে এক ঘন্টা লাঞ্চ বিরতি। কিছু কাস্টমারের সাথে ড্রিংক করতে হয়, উপরি ইনকাম আছে ক্লাবের নিয়ম অনুসারে…”

গল্পকার আহমেদ জামিল সদ্য প্রকাশিত ‘আয়নার সংসার’ গল্পগ্রন্থে এভাবেই নিজস্ব শৈলিতে তুলে ধরেছেন তার দেখা বহু প্রবাস জীবনের একাংশকে। তিনি তার অভিজ্ঞানকে ছোট ছোট নাম দিয়ে সাজিয়েছেন কথাসাহিত্যের বৈশিষ্ট্যে। এখানে ‘আয়নার সংসার’-এর গল্পগুলো পড়লে গল্প মনে হয় না; মনে হয়ে একটি বাস্তব সত্যের ভেতর দিয়ে আরেকটি সত্য বাস্তবতার ভেতর প্রবেশ ঘটছে। মনে হয়, আমাদের পায়ে পায়ে যে জীবন, যে সংসার, যে কঠিন বাস্তবতা- তা যেন অতিক্রম করছি; তখন তা মনের ভেতর আর গল্প থাকে না, নিজেরই একটা অভিজ্ঞতা হয় দাঁড়ায়।

“প্রায় এক ঘন্টা পর দাদিকে পাওয়া গেল দাদার কবরে। মাথা বাড়ি মেরে মেরে বলছিলো, আমি তোমাকে ছেড়ে যাব না। তোমার ছেলেরা, ছেলের বউরা কেউ আমার কথা শুনছে না। শেষ পর্যন্ত দাদিকে তার দুই ছেলে দু’দিন থেকে হাত ধরে গাড়িতে বসিয়ে নিয়ে এলো নতুন বাড়িতে। শুলশানের আলিশান বাড়িতে। সেই থেকে দাদি কেমন বদলে গেল। হাসি খুশি মাখা মিষ্টি দাদি চুপচাপ হয়ে গেলো চিরদিনের জন্য…।”

আহমেদ জামিল গল্পকে সত্যিকার গল্পে রূপ দিতে চেয়েছেন তাঁর ভাষায়। সারা বিশ্বটাকে তিনি দেখার চেষ্টা করেছেন একটা সংসারে। সে সংসারে দেখেছেন বিরাট একটা আয়না। বিশ্বটা সংসার আর সংসারটা আয়না। আসলে গল্প তো জীবনেরই আয়না; যার ভেতর দিয়ে প্রকৃত জীবনটা দেখা যায়। এই সত্যটুকু বিশ্বাস করেন বলেই তিনি তাঁর গ্রন্থের নামকরণেই তুলে ধরেছেন গল্পের অন্তর্নিহিত বক্তব্য; প্রাজ্ঞজন মাত্রই তা আন্তাজ করতে পারবেন। পাঠক পাঠ করলে তা দেখতে পাবেন প্রতিটি গল্পের ধারা বর্ণনায়।

আহমেদ জামিল তাঁর গল্পের ভেতরে বলেছেন তাঁর অভিজ্ঞানের কথা, বলেছেন তার দেখা চারপাশের কথা। বলেছেন পুরনো ঢাকা শহরের কথা, অভিজাত নগর ও নগর সভ্যতার কথা, সুদূর জীবনের আমেরিকা ও আমেরিকায় প্রবাসীদের দো-টানা সংস্কৃতির স্বরূপ ও বিরূপের কথা। বসবাসের চারপাশে মানুষের সুখ-দুঃখ-যন্ত্রণাকে তিনি বেশ মুন্সিয়ানার সঙ্গে গল্পে তুলে এনেছেন। গল্পের গাঁথুনিতে কিছুটা দুর্বলতা প্রত্যক্ষ হলেও তার গল্পে আছে রাজনীতি, সমাজনীতি, প্রেম, বিয়ে, জীবনের নানান ব্যঞ্জনার বয়ান। গ্লোবালাইজেশনের এ যুগে এসেও আহমেদ জামিল লিখেছেন ঘরোয়া কথার ভঙ্গিমায়।

আহমেদ জামিলের এই গল্পগ্রন্থটি একটানে হোচটহীন পড়বার মতো বই। আমি কথাকার আহমেদ জামিলের ‘আয়নার সংসার’-এর বহুল প্রচার, প্রসার ও সমৃদ্ধি কামনা করছি। প্রত্যাশা করছি, আগামীতে এই হাতেই আমরা আরও আরও শিল্পগুণ উত্তীর্ণ গল্প পাবো, যা বাংলা সাহিত্যে নিজ আসন গ্রহণ করবে নিজ গুণেই।  

 

বই: আয়নার সংসার (গল্প)। লেখক: আহমেদ জামিল। প্রচ্ছদ: হিমেল হক। প্রকাশনি: স্টুডেন্ট ওয়েজ। প্রকাশকাল: একুশে গ্রন্থমেলা ২০২১। মূল্য: দুইশত টাকা।