• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬
প্রকাশিত: অক্টোবর ২১, ২০১৯, ০৭:৪০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ২১, ২০১৯, ০৭:৪০ পিএম

কেনো আন্দোলনে নেই মাশরাফী?

ক্রীড়া ডেস্ক
কেনো আন্দোলনে নেই মাশরাফী?

নিজেদের এগারো দফা দাবিতে হঠাৎই সরব হয়ে উঠেছেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। সোমবার (২১ সেপ্টম্বর) মিরপুরে সংবাদ সম্মেলন থেকে তো ক্রিকেটীয় কর্মকান্ড থেকেই নিজেদের গুটিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তারা। এমনকি দাবি আদায় না হলে ভারত সফর-এনসিএল সবকিছু স্থগিত হওয়া এখন সময়ের ব্যাপার।

এই আন্দোলনের নেতৃত্বে আছেন বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। প্রথম সারিতেই রয়েছেন তামিম ইকবাল-মুশফিকুর রহিম-মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের মতো অভিজ্ঞরাও। এছাড়াও এই আন্দোলনে সামিল হয়েছেন জাতীয় দল ও প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে খেলা প্রায় সব ক্রিকেটাররা। 

কিন্তু ধর্মঘটের ডাক দেয়া সংবাদ সম্মেলনে দেখা যায়নি জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজাকে। ক্রিকেটারদের ইস্যুতে যিনি সবসময় সরব থাকেন, সবার আগে এসে সোচ্চার হোন বাংলাদেশের ক্রিকেটের যেকোনো ধরণের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে সেই মাশরাফীই কেন নেই এই আন্দোলনে?

এমন প্রশ্ন জাগছে অনেকের মনেই। জেনে রাখা দরকার, মাশরাফী এখন কেবল একজন ক্রিকেটারই নন একই সঙ্গে তিনি জাতীয় সংসদেরও একজন সদস্য। তাই মাশরাফী চাইলেও এখন আর আগের মতো সরব থাকতে পারেন না সবকিছুতে। তবে অনেকের ধারণা, এই আন্দোলনে সমর্থন রয়েছে মাশরাফীর।

অন্যদিকে বিশ্বকাপে হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পর মাশরাফীর যাওয়ার কথা ছিল শ্রীলঙ্কা সিরিজে। কিন্তু তিনি সেখানে যেতে পারেননি ইনজুরির কারণে। মাঝে একবার অবসর ইস্যুতে বিসিবির কার্যালয়ে এলেও কার্যত শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে ইনজুরির পর থেকেই আর ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট ব্যাপারে দেখা যায়নি মাশরাফীকে। তিনি বরং রাজনৈতিক দিকগুলো নিয়েই বেশি ব্যস্ত, এছাড়া বাকি যা সময় পান তা একান্তই ব্যক্তিগতভাবে কাটান বলে শুনা গেছে। এটাও ধর্মঘটে না থাকার অন্যতম কারণ হতে পারে। 

কেউ কেউ আবার মনে করছেন সাকিবের হাতেই বাংলাদেশের ক্রিকেটের ভবিষ্যত পথচলার দায়িত্ব তুলে দিতে চাচ্ছেন মাশরাফী। যে কারণে এই আন্দোলনেও সাকিবকেই নেতৃত্বে দেখতে চেয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক। 

তবে কারণ যাই হোক, মাশরাফী যে বাংলাদেশের ক্রিকেট এবং ক্রিকেটারদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট যে কোনো বিষয়ে সমর্থন যোগাবেন তা তো আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এখন দেখার বিষয় কবে সেটা প্রকাশ্যে আসে। 

আরও পড়ুন