• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২১, ১২ মাঘ ১৪২৭
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৪, ২০২০, ০৭:৩৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ৪, ২০২০, ০৭:৩৭ পিএম

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর অভিযোগ

‘জনদৃষ্টি ভিন্নখাতে ফেরাতেই আলেমদের মাঠে নামিয়েছে সরকার’ 

জাগরণ প্রতিবেদক
‘জনদৃষ্টি ভিন্নখাতে ফেরাতেই আলেমদের মাঠে নামিয়েছে সরকার’ 

দেশের বিরাজমান নৈরাজ্য থেকে জনদৃষ্টি ভিন্নখাতে ফেরাতেই সরকার আলেমদের মাঠে নামিয়েছে বলে অভিযোগ করেছন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানব বন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণস্বাস্থ্য সংস্থার ট্রাস্টি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা এই অভিযোগ করেন।

বেলা ১১টায় লেবার পার্টির উদ্যোগে ‘স্বাস্থ্যখাতে নৈরাজ্য— দুর্নীতি বন্ধ ও ঔষধের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে’ লেবার পার্টির বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আজকে চারিদিকে যে নৈরাজ্য, এই নৈরাজ্য থেকে দৃষ্টি সরানোর জন্য সরকারই আলেমদের বিপথে চালিত করেছে। আমি আলেমদের বলি, অযথা এসব বিতর্কের না জড়িয়ে আন্দোলনে আসেন। দ্রব্যমূল্য বেড়েছে, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হচ্ছে না তার জন্যে। সরকারের কিছু পয়সা পেয়ে তাদের কথায় নাইচেন না, তাদের কথায় নাচলে আপনাদেরই ক্ষতি হবে।’

ঢাকা মহানগরে পূর্বানুমতি ছাড়া সভা-সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘আজকে পুলিশকে দিয়ে যে হঠাৎ নোটিশ ডিএমপির। আমি বলি, পুলিশ সরকারের খাদেম নয়, জনগণের খাদেম। পুলিশের শত অভাব-অভিযোগ আছে। আজকে পুলিশ অফিসারদের সরকারি বাড়ি-ঘর নেই। তাদের বাইরে গিয়ে থাকতে হয় তাদের বেতনের চেয়ে বেশি ভাড়া দিয়ে। এই অবস্থায় থাকলে তারা ঘুষ খাবে না কী করবে। পুলিশ বাহিনীর প্রতি আমার আবেদন থাকবে অন্যায় নির্দেশের কথা আপনারা শুনবেন না।’

ঔষধের মূল্য বৃদ্ধির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আজকে ঔষধ থেকে শুরু করে প্রত্যেকটা দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে বহুগুণ। সরকার যদি নীতি মানে ১৫ দিনের মধ্যে ঔষধের দাম কমপক্ষে অর্ধেক হবে। ১৯৮২ সালের যে ঔষধ নীতি করা হয়েছে সেখানে পর্যাপ্ত লাভ দিয়ে ঔষধের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।’

সংক্ষিপ্ত সমাবেশে লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে এবং জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, বিএনপির সহ প্রান্তিক সম্পাদক অর্পণা রায়।