• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: মার্চ ২, ২০২১, ০৮:৩৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ২, ২০২১, ০৮:৩৩ পিএম

‘ন ডরাই’ গল্পের মূল নায়িকার ‘ডর’ 

‘ন ডরাই’ গল্পের মূল নায়িকার ‘ডর’ 

‘ন ডরাই’ চলচ্চিত্রটি তৈরি করা হয়েছিল নাসিমা নামের একজন সার্ফারের গল্প নিয়ে। বিভিন্ন বাধা বিপত্তি পেরিয়ে বাংলাদেশের সার্ফিং নিয়ে তিনি কাজ শুরু করেছিলেন। সেই চলচ্চিত্র জিতেছে ২০১৯ সালের সেরা চলচ্চিত্রের খ্যাতি, বিভিন্ন বিভাগে জিতেছে ছয়টি পুরস্কার। কিন্তু সমুদ্রের ডর না থাকলেও সমাজের ডর (ভয়) ঠিকই চেপে ধরেছে নাসিমাকে।

পেশায় রাজমিস্ত্রি স্বামী চান না নাসিমা ঘরের বাইরে যাক। সেই কথাই ধার্য। বাইরে বের হওয়া নিয়ে বেশ কথা কাটাকাটি হয় পরিবারে। এমনকি চোখে চোখে রাখেন শাশুড়ি-ননদও। তাই চলচ্চিত্রের সময় তিন দিনের শুটিং শেষে ৩০ হাজার টাকা আর সিনেমা মুক্তির সময় আমন্ত্রণের সম্মান ছাড়া বর্তমানে নাসিমার কিছুই নেই।

নাসিমার গল্প নিয়ে প্রথম কাজ করেছিলেন মার্কিন নির্মাতা হিদার কিসিঞ্জার। তার নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র ‘দ্য মোস্ট ফিয়ারলেস’-এর পর ‘ন ডরাই’-এর আয়েশা চরিত্র তৈরি করা হয়। এখন ‘ন ডরাই’ একটি সংস্থা, একটি আন্দোলনের নাম, যারা সার্ফিং নিয়ে কাজ করছে।

আগে নাসিমা পর্যটকদের কাছে খাবার, ফুল বিক্রি করতেন। ঝিনুক কুড়ানো নাসিমা সার্ফিংয়ের স্বপ্ন দেখিয়েছেন অনেককেই। কিন্তু এখন সেই নাসিমা কোনো কাজ করতে না পারার পেছনে সাংসারিক জটিলতা ছাড়াও শিক্ষার অভাবকে দায়ী করছেন। 
হয়তো কোনো এক নাসিমার সংবাদ আমরা আবারও বাইরের কারও কাছে জানতে পেরে উদ্বেলিত হবো, আবারও তৈরি হবে ‘ন ডরাই’-এর দ্বিতীয় ভাগ। কিন্তু সেই নাসিমারা সমাজে টিকে থাকবে কিনা, দিনশেষে সেটাই বড় প্রশ্ন।