• ঢাকা
  • বুধবার, ০৮ এপ্রিল, ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: মে ২৩, ২০১৯, ০৫:৩৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২৩, ২০১৯, ০৫:৩৫ পিএম

‘ধানক্ষেতে আগুনের ছবি বাংলাদেশের নয়, ভারতের’ 

জাগরণ প্রতিবেদক 
‘ধানক্ষেতে আগুনের ছবি বাংলাদেশের নয়, ভারতের’ 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ধানক্ষেতে যে আগুনের ছবি ছড়াছড়ি করছে তা বাংলাদেশে নয়, ভারতের পাঞ্জাবের বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। 

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ও "নারীর অগ্রযাত্রায় সমৃদ্ধ বাংলাদেশ শেখ হাসিনার অবদান" শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ দাবি করেন। 

বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্র  এখনো থামেনি দাবি করে হানিফ বলেন- আমি গত দু’দিন ধরে দেখছিলাম বগুড়ায় কৃষকের দেয়া ধানক্ষেতে আগুনের একটি ছবি ফেসবুকে আসছে। আমরা খোঁজ নিয়ে দেখলাম বগুড়ায় কোনো কৃষক ধানক্ষেতে আগুন দেয়নি। এই ছবিটা ভারতের পাঞ্জাবে একটা গম ক্ষেতে আগুন লেগেছিল। সেটা নেভানোর জন্য সরকারের পক্ষ থেকে চেষ্টা করা হয়েছিল। সেই ছবিটা বাংলাদেশে ধানের ক্ষেতে আগুন বলে প্রচার করা হচ্ছে।
    
তিনি আরও বলেন, খুলনার একজন বিএনপি নেতা জুটমিল শ্রমিকদের কিভাবে উসকে দিয়েছেন তা আপনাদের জানা। 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. সুলতানা সফির সভাপতিত্বে সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী,সংসদ সদস্য ও সাবেক কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী, সাবেক নারী ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, আওয়ামী লীগ নেত্রী জাকিয়া হাসান, ফজিলাতুনন্নেসা ইন্দিরা, যুব মহিলা লীগের সভপাতি নাজমা আক্তার, আওয়ামী লীগ নেত্রী সাহেদা তারেক দীপ্তি, সাবেরা বেগম প্রমূখ। 

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন। 

ধানক্ষেতে আগুন লাগার ঘটনা যারা ছড়িয়েছে এবং পাটকল শ্রমিকদের যারা উসকে দিয়েছে তাদের গ্রেফতার করে অবিলম্বে শাস্তির ব্যবস্থা করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান মাহবুব-উল আলম হানিফ। 

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের নারীরা অনেক দুর এগিয়ে গেছে। আমাদের দেশে প্রধানমন্ত্রী নারী, বিরোধী দলীয় নেত্রী নারী, স্পিকার নারী, উপনেতা নারী। এখন শুধু বাকি আছে রাষ্ট্রপতি পদ। সেটাও দাবি করছেনে আজকের নারীরা। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার বাংলাদেশে আজ  নারীরা অনেক দূর এগিয়ে গেছে। গ্রামগঞ্জে নারীরা আজ নানা চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে সফল হচ্ছেন। স্থানীয় সরকারের নেতৃত্বে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নিচ্ছেন এবং নির্বাচনে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার মাধ্যমে তারা নেতৃত্বে আসছেন। এসব শেখ হাসিনার অবদান। তিনি বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার আদর্শ ধারণ করে সকল নেতাকর্মীকে রাজনীতি করার আহ্বান জানান।

সেমিনারে আওয়ামী লী‌গের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য বেগম ম‌তিয়া চৌধুরী ব‌লে‌ছেন, বর্তমা‌নে দে‌শে সব‌চে‌য়ে বড় সমস্যা হ‌লো জ‌ঙ্গি সমস্যা। এ বিষ‌য়ে গ্রা‌মের নারী‌দের স‌চেতন কর‌তে হ‌বে। গ্রা‌মের নারীরা এখ‌নো অন্ধকা‌রে আছে । তা‌দের ভেতর থেকে  অন্ধকার দূর করতে হ‌বে। তি‌নি ব‌লেন, অ‌নেক সময় দলের নেতাকর্মীরা অসৎ প‌থে অর্থ উপার্জনের পথ খোঁজে । এগু‌লো কর‌লে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন হ‌বে না।

এএইচএস/বিএস