• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৯ আশ্বিন ১৪২৬
প্রকাশিত: জুন ১০, ২০১৯, ০৯:৩৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ১০, ২০১৯, ০৯:৪০ পিএম

ঐক্যফ্রন্টকে আরও সময় দিলেন কাদের সিদ্দিকী 

জাগরণ প্রতিবেদক
ঐক্যফ্রন্টকে আরও সময় দিলেন কাদের সিদ্দিকী 
কাদের সিদ্দিকী - ফাইল ছবি

একাদশ নির্বাচনে নির্বাচিতদের জাতীয় সংসদে যাওয়া নিয়ে মতভিন্নতার কারণে ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার ঘোষণা দিলেও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী আরও সময় দিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে।

সোমবার (১০ জুন) রাজধানীর উত্তরায় জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রবের বাসায় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে শেষে সাংবাদিকদের এমন কথা বলেন তিনি।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমরা ৮ জুন পর্যন্ত সময় দিয়েছিলাম, কিন্তু এখনও কোনো উত্তর পাইনি। আজকের বৈঠকে দীর্ঘসময় আলোচনা হয়েছে, সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে আলোচনা হয়েছে। কিন্তু বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার কোনো সুযোগ নাই। যেহেতু আমাদের প্রবীণ নেতা (ড. কামাল হোসেন) অসুস্থ, সেহেতু বৈঠকটি মূলতবি রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি আমার দলের সভায় আলোচনা করে আরো অপেক্ষা করব। যদি সুরাহা হয়, আমরা আামাদের জান-প্রাণ দিয়ে লড়াই করবো। আমরাও চাই জাতীয় বৃহত্তর ঐক্য। এখন পর্যন্ত সেই জাতীয় ঐক্যের ভিত শক্তিশালী হয় নাই। এখন অবধি জাতির প্রত্যাশা আমাদের ঐক্যফ্রন্ট পূরণ করতে পারেনি।

৮ জুনের মধ্যে সদুত্তর বা সমাধান না হলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে থাকবেন না- এই প্রশ্নের জবাবে কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমি স্পষ্ট করে বলেছি। এ ব্যাপারে সমাধান করার জন্যই আলোচনা। আমি গত ৪ জুন ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে দীর্ঘ সময় আলোচনা করেছি। তারপরে আজকে সব দলের সঙ্গে নেতাদের নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ড. কামাল হোসেন অসুস্থ থাকায় এই বিষয়টা সম্পূর্ণ হতে পারেনি। সেজন্য কিছু সময় আমাকে ধৈর্য্য ধরতেই হবে।

‘আপনি আল্টিমেটাম দিয়েছিলেন’- এর জবাব নাকচ করে দিয়ে কাদের সিদ্দিকী আবার বলেন, আমি কোনো আল্টিমেটাম দিইনি। আমি প্রশ্ন রেখেছিলাম। অনেকে অনেকের মতো করে ইয়ে করেন। আল্টিমেটাম অন্য জিনিস।

তিনি বলেন, এই নির্বাচনকে প্রত্যাখান ও পুনর্নির্বাচনের প্রত্যাশা আমাদের মনে হয়েছে- এটা জাতীয় আকাঙ্ক্ষা, এটা জাতির কথা। পরবর্তীতে সংসদে ছিঁটেফোটা ৬/৭ জন সদস্য, ভাত খেতে গেলে যেমন ভাত পড়ে, এরকম ছিঁটেফোটা কয়েকজন শপথ নেয়ায় জাতি মর্মাহত হয়েছে। সেই প্রশ্নগুলোই আমরা ঐক্যফ্রন্টের প্রবীণ নেতা ও ঐক্যফ্রন্টের কাছে করেছি। আমরা বিশ্বাস করি মানুষের নিরাপত্তা নেই, প্রতিদিন মানুষ মরছে, এই যে অব্যবস্থাপনা- এর থেকে বাঁচতে হলে বৃহত্তর ঐক্য দরকার।

টিএস/ এফসি

Islami Bank