• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ২১, ২০১৯, ০৫:৫২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ২১, ২০১৯, ১১:৫৪ পিএম

‘পুলিশ তৎপর হলে নুসরাত হত্যা এড়ানো যেত’

‘পুলিশ তৎপর হলে নুসরাত হত্যা এড়ানো যেত’


পুলিশ তৎপর হলে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির হত্যাকাণ্ড এড়ানো যেত বলে জানিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। এজন্য সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনের দায়িত্বে অবহেলার প্রসঙ্গটি কমিটির বৈঠকে উঠে আসে। আর আগামীতে এ ধরনের কোনো সম্ভাব্য ঘটনার ইঙ্গিত পেলে পুলিশের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে থানার ওসি পর্যন্ত সবাইকে প্রতিরোধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি।

রোববার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির দ্বিতীয় বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু বলেন, দেশে কোনো সম্ভাব্য ঘটনা সম্পর্কে পুলিশ জানতে পারলে তা প্রতিহত করার জন্য সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে কাজ করার অনুশাসন দেয়া হয়েছে। আর কোনো ঘটনা ঘটলে পুলিশ যাতে যত দ্রুত সম্ভব আসামিদের আইনের আওতায় আনে সেজন্যও সুপারিশ করা হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী অপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার জন্য কমিটির পক্ষ থেকে সুপারিশ করা হয়েছে। দেশের বিভিন্ন জায়গায় নারী নির্যাতন সম্পর্কে স্বারাষ্ট্র মন্ত্রী কমিটিকে জানান, তারা ঘটনা ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিচ্ছেন। আর দায়ী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। 

ফেনীর নুসরাত জাহান রাফির ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলেও তিনি জানান। 

এদিকে কমিটির সদস্য জাতীয় পার্টির সদস্য পীর ফজলুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, পুলিশ তৎপর হলে নুসরাত জাহান রাফির হত্যাকাণ্ড এড়ানো যেত। বিষয়টি আমি কমিটির বৈঠকে উত্থাপন করেছি। তবে কমিটির সদস্যরা সবাই এ ব্যাপারে একমত হয়েছেন। 

বৈঠকে আরো অংশ নেন কমিটির সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন এমপি, মো. হাবিবর রহমান এমপি, মো. ফরিদুল হক খান এমপি, নূর মোহাম্মদ এমপি ও  সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ ।

এইচ এস/আরআই