• ঢাকা
  • শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১০, ২০২০, ০৮:৫৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ১১, ২০২০, ০৯:৩৬ এএম

দেশে ফিরতে চান কম্বোডিয়ায় আটকেপড়া শতাধিক প্রবাসী

জাগরণ ডেস্ক
দেশে ফিরতে চান কম্বোডিয়ায় আটকেপড়া শতাধিক প্রবাসী
ফাইল ফটো

কম্বোডিয়ায় আটকেপড়া প্রায় শতাধিক বাংলাদেশি দেশে আসার জন্য উদগ্রীব হয়ে আছেন। বিশ্বব্যাপী মহামারী করোনা প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার আগে ভ্রমণ সহ ব্যবসায়িক কাজে কম্বোডিয়ায় গিয়ে সে দেশে আটকে পড়েন তারা। দেশে ফিরতে কোনো ধরনের কুলকিনারা করতে না পেরে অবশেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপও কামনা করেছেন।

ভুক্তভোগীরা জানান, নিজ অর্থায়নে দেশে ফিরতে চেয়ে কম্বোডিয়া-থাইল্যান্ডের বাংলাদেশ দূতাবাস, ব্যাংককে বিগত কয়েক মাস যাবৎ ধরনা দিয়েও কোনো ধরনের সমাধান না পেয়ে সেদেশে মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, বাংলাদেশ দূতাবাসের ফার্স্ট সেক্রেটারি মো. ফাহাদ পারভেজ বসুনিয়া আটকেপড়া বাংলাদেশিদের নিকট দেশে ফেরত পাঠানোর জন্যে আবেদন আহবান করলে শতাধিক বাংলাদেশি আবেদন করেন। আবেদনকারীদের ভাষ্যমতে, বিগত দেড় মাস আগে দূতাবাসের ইমেইলে আবেদন পাঠিছিলেন। ওই পর্যন্তই দায়িত্ব শেষ করেছেন সংশ্লিষ্ট দেশের বাংলাদেশি দূতাবাস। দেশে ফিরতে কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে তা জানতে প্রবাসীরা বারবার ফোন করলেও দূতাবাস কোন বাংলাদেশির ফোনই রিসিভ করে না এবং যোগাযোগও বন্ধ রেখেছে।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশি কমিউনিটি নেতৃবৃন্দেরও  কার্যকর কোনো পদক্ষেপ পরিলক্ষিত হচ্ছে না। আটকেপড়া বাংলাদেশিদের মধ্যে অনেকেই জটিল রোগে আক্রান্ত। এমতাবস্থায় দেশে থাকা তাদের পরিবার-পরিজনও দুশ্চিন্তা করছেন।

এ বিষয়ে কম্পোডিয়া প্রবাসী আমির হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম, ফজলুল আহমেদ, ওবায়দুল হকসহ আরও অনেকেই জানান, আমরা বার বার দূতাবাসে ফোন করেছি, কিন্তু কেউ ফোন রিসিভ করছে না। এখন আমরা কোথায় কী করলে দেশে ফিরতে পারব তারও কোনো পথ খুঁজে পাচ্ছি না। দূতাবাস না চাইলে আমরা দেশেও ফিরতে পারবো না। এমতাবস্থায় আমরা সোনার বাংলার বাস্তব রূপদানকারী বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করছি। আশা করছি, তিনি আমাদেরকে এই মানবেতর জীবন থেকে উদ্ধার করে দেশে ফিরিয়ে নেবার ব্যবস্থা করবেন।

জাগরণ/ইউসুফ