• ঢাকা
  • সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১, ১২ মাঘ ১৪২৭
প্রকাশিত: নভেম্বর ৩০, ২০২০, ০৯:৪৩ এএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ৩০, ২০২০, ০৯:৪৩ এএম

‘স্বপ্নবাজ’ আনিসুল হককে হারানোর তিন বছর

জাগরণ ডেস্ক
‘স্বপ্নবাজ’ আনিসুল হককে হারানোর তিন বছর

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রথম নির্বাচিত মেয়র আনিসুল হকের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১৭ সালের এই দিনে লন্ডনের ওয়েলিংটন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

ডিএনসিসির মেয়র হিসেবে মাত্র দুই বছর দুই মাস ২৪ দিন দায়িত্ব পালন করেন আনিসুল হক। এই স্বল্প সময়ে তিনি ঢাকাবাসীকে দেখিয়েছিলেন বিশ্বমানের ‘স্মার্ট’ নগরী গড়ার স্বপ্ন। ঢাকাকে আধুনিক এবং বসবাসের উপযোগী করতে নানা উদ্যোগ বাস্তবায়ন করেন তিনি।

রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে গিয়ে মেয়র আনিসুল হক বলেছিলেন, ‘মানুষ পারে না এমন কিছু নেই। মানুষের জন্যই বলা হয়, মানুষ স্বপ্নের সমান বড়। মানুষ কখনো কখনো স্বপ্নের চাইতেও বড়।’

তাই হয়তো মেয়র আনিসুল হক আকাশছোঁয়া স্বপ্ন দেখতেন। তিনি শুধু স্বপ্নই দেখতেন না, স্বপ্ন বাস্তবায়নও করতেন। অপরকেও দেখাতেন স্বপ্ন। মেয়র থাকাকালীন সময়ে তিনি নানা সাহসী উদ্যোগ বাস্তবায়ন করে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন। দল-মত নির্বিশেষে কুড়িয়েছিলেন প্রশংসা। ঢাকাবাসীকে উপহার দিতে চেয়েছিলেন একটি স্মার্ট নগরী। সেই স্বপ্ন নিয়ে তিনি কাজও শুরু করেছিলেন।

মৃত্যুর আগে মেয়র হিসেবে কাজ করার জন্য কম সময় পেলেও রাস্তা-ফুটপাতসহ অবৈধ বহু স্থান দখলমুক্ত করেছিলেন মেয়র আনিসুল। শুরু করেছিলেন নানামুখী উন্নয়নকাজ। দীর্ঘ ৫০ বছর দখলে থাকা তেজগাঁওয়ের সাতরাস্তার সামনের ট্রাকস্ট্যান্ডের সড়কটি উদ্ধার করে এলাকাটি যানজটমুক্ত করেন তিনি। এ ছাড়া গাবতলী বাসস্ট্যান্ডের সামনের দখলে থাকা প্রায় ৪২ একর জমি উদ্ধার করেন। এর ফলে গাবতলী এলাকার যানজট অনেকাংশে কমে যায়।তবে তিনি প্রয়াত হওয়ার পর মাঝে মাঝেই সড়কটি চলে যায় আগের অবস্থায়।

আনিসুল হকের পরিকল্পনায় করা এই ইউটার্ণগুলো যে কতটা কাজের তার প্রমাণ পাচ্ছেন এই সড়ক দিয়ে চলাচলকারী সাধারণ মানুষ। সাতরাস্তা থেকে আব্দুল্লাপুর পর্যন্ত এমন ১২ টি ইউটার্ণ করার কথা ছিল। আক্ষেপের বিষয় তার মৃত্যুর পর এখন পর্যন্ত মাত্র তিনটির কাজ শেষ করা সম্ভব হয়েছে।

এদিকে, ‘স্বপ্নবাজ’ আনিসুল হককে তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তার পরিবারের পাশাপাশি ডিএনসিসির পক্ষ থেকে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে ডিএনসিসির পক্ষ থেকে সকাল সাড়ে ১০টায় বনানী কবরস্থানে মেয়র আনিসুল হকের কবরে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাবেন ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম। বাদ জোহর গুলশানে ডিএনসিসির নগর ভবনে (লেভেল ৮) মিলাদ ও দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে।

জাগরণ/এমআর