• ঢাকা
  • রবিবার, ০৭ মার্চ, ২০২১, ২৩ ফাল্গুন ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৮, ২০২১, ১০:১৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১৮, ২০২১, ১০:১৬ পিএম

অনুষ্ঠিত হলো বছরের প্রথম সংসদ অধিবেশন

অনুষ্ঠিত হলো বছরের প্রথম সংসদ অধিবেশন

মহামারীর মাঝেই নতুন বছরের শুরুতে একাদশ সংসদের একাদশ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে সোমবার। নিয়মানুযায়ী প্রথম অধিবেশনের শুরুর দিন সংসদে ভাষণ দেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। ভাষণের পর সংসদ সদস্যরা অধিবেশন জুড়ে ভাষণের ধন্যবাদ প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করেন।

সোমবার বিকাল সাড়ে ৪টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে একাদশ সংসদ অধিবেশন শুরু হয়। অধিবেশনের শুরুতে স্পিকার প্রথমে সভাপতিমণ্ডলী মনোনয়ন করেন। এবার অধিবেশনে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হয়েছেন- নজরুল ইসলাম, আফতাব উদ্দিন সরকার, আব্দুস সালাম মুর্দেশী, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ও মমতাজ বেগম।

এরপর অধিবেশনে সভাপতিমণ্ডলী মনোনয়নের শেষে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন স্পিকার। সাবেক ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী, সাবেক মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, সাবেক সংসদ সদস্য আখম জাহাঙ্গীর হোসাইন, খালেদুর রহমান টিটো, শাহ-ই-জাহান চৌধুরী, মোহাম্মদ আলী মোহাম্মদ আবু হেনা, এমএ হাসেম, আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, দেলোয়ার হোসেন খান, সামসুদ্দীন আহমেদ, নুরজাহান ইয়াসমিন, খালেদা পান্নার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাচী শেখ রাজিয়া নাসের, জা রওশন আরা ওয়াহেদ, এমপি হাজী সেলিমের স্ত্রী গুলশান আরা, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আয়শা খানম, কথাসাহিত্যিক রাবেয়া খাতুন, ভাষা সৈনিক জাহিদ হোসেন মুসা মিয়া, কবি মনজুরে মাওলা, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থার সমন্বয়ক আবদুল হান্নান খান, অভিনেতা আলী যাকের, সংগীতজ্ঞ ওস্তাদ শাহাদাৎ হোসেন খান, বীর উত্তম ক্যাপ্টেন আকরাম আহমেদ, অভিনেতা আবদুল কাদের, সাংবাদিক মিজানুর রহমান খান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমানের স্ত্রী বুলা আহাম্মেদ, অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুতেও সংসদে শোক প্রকাশ করা হয়।

প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশ-বিদেশের চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, প্রশাসন-পুলিশের সদস্য, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, গণমাধ্যমকর্মী, ব্যবসায়ী ও সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং অন্যান্য সরকারি-বেসরকারি কর্মচারী মৃত্যুতেও গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে।

সাধারণত বছরের প্রথম অধিবেশন দীর্ঘ হয়। রাষ্ট্রপতির ভাষণের পর সংসদ সদস্যরা অধিবেশন জুড়ে ওই ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করেন। তবে করোনার কারণে এবারের অধিবেশনগুলো সংক্ষিপ্ত হতে পারে বলে জানিয়েছেন সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম। এবার ১২ থেকে ১৪ কার্যদিবস অধিবেশন চালানো হতে পারে।

মহামারিকালের অন্য চারটি অধিবেশনের মতো এবারও স্বাস্থ্যবিধির বাধ্যবাধকতার কারণে সীমিত সংখ্যক সংসদ সদস্য অধিবেশনে অংশ নেবেন। প্রথম দিন করোনাভাইরাস পরীক্ষায় নেগেটিভ রিপোর্ট পাওয়া সংসদ সদস্যরাই কেবল অংশ নিচ্ছেন। এরপর প্রতি কার্যদিবসে সর্বোচ্চ ৯০ জনকে পর্যায়ক্রমে আমন্ত্রণ জানানো হবে। অধিবেশন চলার সময় সংসদ সচিবালয়ের কর্মরতদেরও সংসদ ভবনে প্রবেশ সীমিত থাকবে।