• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ মে, ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: জানুয়ারি ৬, ২০২২, ০১:০২ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ৫, ২০২২, ০৭:০২ পিএম

বঙ্গোপসাগরে মিলল গ্যাসের সন্ধান

বঙ্গোপসাগরে মিলল গ্যাসের সন্ধান
প্রতীকী ছবি

সমুদ্র অর্থনীতিতে নতুন দিগন্তের হাতছানি। বঙ্গোপসাগরে সন্ধান মিলেছে ১৭ থেকে ১০৩ ট্রিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস। সেইসঙ্গে তলদেশে মিলেছে ২২০ প্রজাতির সামুদ্রিক শৈবাল। যা ব্যবহার করা যাবে শিল্পের কাঁচামাল হিসেবে বাঁচবে অন্তত ২৮ হাজার কোটি টাকা।

ব্লু ইকোনমি নিয়ে বুধবার (৫ জানুয়ারি) এক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করে এসব তথ্য তুলে ধরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। 

২০১২ সালে সমুদ্রসীমা জয়ের কয়েক বছর পর থেকেই শুরু হয় তলদেশে অনুসন্ধানের কাজ। যদিও নয় বছর পার হলেও এখন পর্যন্ত ফলাফল শূন্য। তবে সে আক্ষেপের খানিকটা হলেও ঘুচলো, নেদারল্যান্ডস ও যুক্তরাজ্যকে সঙ্গে নিয়ে চালানো গবেষণায়। যার বিস্তারিত তুলে ধরতে সংবাদ সম্মেলন করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

 

এ সময় মেরিটাইম ইউনিটের সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) খুরশীদ আলম জানান, প্রাথমিক ধারণায়, বঙ্গপোসাগরে সন্ধান মিলেছে অন্তত ১৭ থেকে ১০৩ ট্রিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের।

সংবাদ সম্মেলনে অংশ নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীও জানান, গ্যাস ছাড়াও ২২০ প্রজাতির সামুদ্রিক শৈবালের সন্ধান মিলেছে সমুদ্র তলদেশে। যা আহরণে সহায়তা করবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এ সময় বলা হয়, গবেষণায় পাওয়া সামুদ্রিক শৈবালের আনুমানিক বাজার মূল্য অন্তত ২৮ হাজার কোটি টাকা। যা ব্যবহার করা যাবে শিল্প কারখানায়। কিন্তু বর্তমানে তার পুরোটাই আমদানি নির্ভর।

জাগরণ/এমএ