• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২০, ২০২০, ০২:৫৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২০, ২০২০, ০৭:২০ পিএম

দেখিয়ে দিতে চাই তরুণরাও পারে : ইশরাক

জাগরণ প্রতিবেদক
দেখিয়ে দিতে চাই তরুণরাও পারে : ইশরাক
ইশরাক হোসেন- ছবি : জাগরণ

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন বলেছেন, সরকার দলীয় প্রার্থী আমার বয়স নিয়ে সমালোচনা করে। আমি তরুণ সমাজকে বলবো, আপনারা আমার সঙ্গে থাকবেন- আমাকে ভোট দিবেন। আমরা দেখিয়ে দিতে চাই, তরুণরাও পারে।  

সোমবার (২০ জানুয়ারি) সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচারণা শুরুর আগে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সামনে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ইশরাক বলেন, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে ছাত্রসমাজ অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছিল। তরুণ ভাই তাদের বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়েছিল স্বাধীনতা অর্জনের জন্য। তাই যারা তরুণদের বয়স নিয়ে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে আমরা তাদের দেখিয়ে দিতে চাই আমরা তরুণরাও নেতৃত্ব দিতে পারি।

সদ্য পিতৃহারা ইশরাক আবেগ-আপ্লুত কণ্ঠে নগরবাসীর উদ্দেশে বলেন, আজকে আমার বাবা নেই। আপনারাই আমার অভিভাবক। আপনারাই আমার বাবা-মা। আপনারা আমাকে দেখে রাখবেন। আপনারা যদি আমার পাশে থাকেন ইনশাল্লাহ কোনো বাধা-বিপত্তিকে ভয় করব না। আমি আল্লাহ ছাড়া কোনো মানব সন্তানকে ভয় করি না। প্রয়োজনে রক্ত দিব, জীবন দিব, তারপরও আপনাদের অধিকার আদায়ের জন্য শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত কাজ করে যাব। 

এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, আমরা যখন মেয়র ছিলাম তখন ঢাকার শহর এত নোংরা ছিল না। ঢাকা শহর এত যানজটের শহর ছিল না। আজকের এই ১৩ বছরে আওয়ামী লীগ সরকারের শাসন আমলে ঢাকা শহরকে ধ্বংস করে দিয়েছে। 

ইভিএম প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সুষ্ঠু ও সঠিক ফলাফল আসে তাহলে আমরা নির্বাচন মেনে নেব। কিন্তু যদি কোনো কারচুপির আশ্রয় নেন তাহলে এই মেয়র নির্বাচন থেকে আপনাদের (সরকার) পতনের আন্দোলন শুরু হবে। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন প্রমুখ।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি থেকে গণসংযোগ শুরু করেন ইশরাক হোসেন। এখান থেকে সেগুন বাগিচা, রাজমণি সিনেমা হল, শান্তিনগর, বেইলি রোড, সিদ্ধেশ্বরী ডিগ্রি কলেজের সামনে দিয়ে মালিবাগ মোড়, শান্তিনগর, ইস্টার্ন প্লাস মার্কেট, নয়া পল্টন মসজিদ গলি হয়ে কালবার্ট রোডে গিয়ে ৪০ মিনিটের বিরতি শেষে বিকেল ৩ টায় আবার ফকিরাপুল পানির ট্যাঙ্কির সামনে দিয়ে এসে টিএন্ডটি কলোনী, এজিবি কলোনী হয়ে আল হেলাল জোনে মাগরিবের নামাজের বিরতি দেয়া হয়। 

এ সময় তার সঙ্গে থাকা কয়েক হাজার নেতাকর্মী ‘মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই- খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’, ‘রাজপথ ছাড়ি নাই- খালেদা জিয়ার ভয় নাই; খালেদা জিয়ার কিছু হলে- জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে; মাগো তোমার একটি ভোটে- খালেদা জিয়া মুক্তি পাবে’ এ স্লোগান দিতে থাকেন।

টিএস/টিএফ

আরও পড়ুন