• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২০, ০৮:১২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২০, ০৮:১২ পিএম

রংপুরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে চীনফেরত ছাত্র হাসপাতালে

রংপুর সংবাদদাতা
রংপুরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে চীনফেরত ছাত্র হাসপাতালে
বিশেষ ব্যবস্থায় চিকিৎসক ও নার্সরা তামজীদকে চিকিৎসা দিচ্ছেন  -  ছবি : জাগরণ

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে চীনফেরত এক ছাত্রকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডা. দেবেন্দ্র নাথ সরকার জানান, শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে তাকে ভর্তির পরই হাসপাতালের চিকিৎসকরা তার প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে করোনারিভাইরাসের কোনো লক্ষণ খুঁজে পাননি।

তবে ওই রোগীর রক্ত, কফ ও অন্যান্য নমুনা সংগ্রহ করে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইডিসিআর) পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণের জন্য হাসপাতালের মূল ভবনের বাইরে অবস্থিত ৫ শয্যার আইসোলেটেড বিভাগে রাখা হয়েছে।

ডা. দেবেন্দ্র জানান, ওই রোগী যে কারোনারি ভাইরাসে আক্রান্ত তার লক্ষণ যেহেতু পাওয়া যায়নি, সেহেতু তাকে নিয়ে আতঙ্কিত বা ভয়ভীতির কিছু নেই। একই সঙ্গে তিনি সাধারণ মানুষকে বিচলিত না হওয়ার জন্যও আহবান জানান।

নীলফামারীর ডোমার উপজেলার জোড়াবাড়ি ইউনিয়নের মির্জাগঞ্জের আলতাফ হোসেন জানান, তার ছেলে তামজীদ হোসেন চীনের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করতেন। করোনারিভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর গত ২৯ জানুয়ারি চীনের হাসপাতালে এবং বিমানবন্দরে তার শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষায় কোনো লক্ষণ না পাওয়ায় তাকে ছাড়পত্র দিলে ২৯ জানুয়ারিই শাহজালাল বিমানবন্দরে এসে নামেন এবং ট্রেনযোগে সরাসরি ডোমারের বাসায় যান। এখানে আসার পর শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাত থেকে জ্বর জ্বর ভাব এবং সর্দি ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত হন তিনি। পরে নীলফামারীর চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

হাসপাতালের অতিরিক্ত পরিচালক ডা. মোকাদ্দেম হোসেন জানান, তার শরীরে জ্বর এবং শ্বাসকষ্ট থাকলেও করোনারিভাইরাসের কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি। তার পরও যেহেতু তিনি চীনফেরত, সেহেতু সাবধানতাবশত তাকে আইসোলেটেড ওয়ার্ডে রেখে তার রক্ত, কফ ও অন্যান্য নমুনা সংগ্রহ করে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইডিসিআর) পাঠানো হয়েছে। ঢাকা থেকে রিপোর্ট পেলেই বিস্তারিত জানা যাবে।

ডা. মোকাদ্দেম জানান, বর্তমানে তামজীদকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। সেখানে বিশেষ ব্যবস্থায় চিকিৎসক ও নার্স ছাড়া কাউকে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। তিনি আশা করেন, ওই রোগী করোনারিভাইরাসে আক্রান্ত নন এবং অচিরেই সুস্থ হয়ে উঠবেন। এজন্য রংপুর জেলাসহ দেশবাসীকে আতঙ্কিত না হওয়ারও পরামর্শ দেন তিনি।

এদিকে চীন থেকে আসা এই রোগীকে নিয়ে গোটা নগরীতে আতঙ্ক, উৎকণ্ঠার পাশাপাশি আলোচনার ঝড় উঠেছে।

এনআই

আরও পড়ুন