• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৬, ২০২১, ০৩:০৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২৬, ২০২১, ০৩:০৮ পিএম

জলঢাকায় অনুমোদনহীন ৪৫ স’মিল

জলঢাকায় অনুমোদনহীন ৪৫ স’মিল

অনুমোদন ছাড়াই চলছে নীলফামারীর জলঢাকায় ৪৫টি স’মিল। এসব মিলে সাবাড় হচ্ছে মেহগনি, আম, জাম, কাঁঠাল, জলপাই, নিমসহ নানা প্রজাতির গাছ। মিলের অনুমোদন না থাকায় সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব।

বন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বন আইন ১৯২৭ ও প্রণীত স’মিল (লাইসেন্স) বিধিমালা ২০১২ অনুযায়ী কোনো স’মিল মালিক লাইসেন্স না নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবে না। লাইসেন্স নেয়ার পর থেকে প্রতিবছর তা নবায়ন করতে হবে। 

মঙ্গলবার উপজেলার বিভিন্ন স’মিল ঘুরে দেখা গেছে, মিল চালানোর ক্ষেত্রে সরকারের সুনির্দিষ্ট বিধান থাকলেও চিত্র একেবারেই ভিন্ন। এসব মিল মালিক বছরের পর বছর অনুমোদন ছাড়াই দিব্যি মিল চালিয়ে যাচ্ছেন। মিলে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ মজুত করে রাখা হয়েছে। ভোর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত এসব মিলে বিরামহীন চলছে কাঠ কাটার কাজ।

উপজেলা রেঞ্জ কর্মকর্তা এ কে এম রেজাউল করিম বলেন, “অবৈধ স’মিলগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। দ্রুত ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিফাত মো. ইশতিয়াক ভূঁইয়া “বলেন, বিষয়টি দুঃখজনক, যদি এমন হয় তবে তা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেব।”