• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: মার্চ ২, ২০২১, ০৪:২৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ২, ২০২১, ০৪:৩৩ পিএম

অস্তিত্ব সংকটে পুরাতন গোমতী নদী

অস্তিত্ব সংকটে পুরাতন গোমতী নদী

কুমিল্লার মানচিত্রে পুরাতন গোমতী নদীটির অস্তিত্ব কাগজে-কলমে থাকলেও এখন আর তা নেই বললেই চলে। ভূমিদস্যুদের করাল গ্রাসে নদীটি দিন দিন দখল হয়ে যাচ্ছে। স্থানীয় প্রভাবশালীরা মাটি ভরাট করে, আবর্জনার স্তূপ ফেলে পুরাতন গোমতী নদীটির দুইপাশের জায়গা দখল করে নিয়েছে। 

কুমিল্লার বিশিষ্টজনরা মনে করেন, পুরাতন এ নদীটিকে ভূমিদস্যুদের আগ্রাসী থাবা থেকে রক্ষা করা না গেলে ভবিষ্যতে এর অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে, যা কুমিল্লার পরিবেশে মারাত্মক ভারসাম্যহীনতা সৃষ্টি করবে। 

কুমিল্লা পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক শওকত আরা কলি দৈনিক জাগরণকে বলেন, “জেলা প্রশাসনের সমন্বয়ে আমরা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে নদীখেকো ভূমিদস্যুদের খুব দ্রুত উৎখাতের ব্যবস্থা করে নদীটি দখল মুক্ত করব।”

কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের তালিকায় ৫২২ জন দখলদারের নাম রয়েছে। কিন্তু ১৫ বছর ধরে প্রায় ১০ বার নোটিশ দেওয়া সত্ত্বেও দখলমুক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না। 

স্থানীয়রা জানান, নদীরপাড়ের অবৈধ জায়গা ছেড়ে দেওয়ার জন্য নোটিশ দেওয়া হলেও এখন পর্যন্ত পুরাতন গোমতী নদীর দুই পাড়ের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের কোনো প্রকার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে না। এমনকি প্রতিদিন নদীর দুই পাড়ের বাসিন্দারা তাদের বাসাবাড়ির বিভিন্ন প্রকার ময়লা-আবর্জনা নদীতে ফেলে পানি ব্যবহারের অনুপযোগী করে ফেলেছে। নদীটিকে রক্ষা করতে স্থানীয়রা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।