• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ মে, ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
প্রকাশিত: মে ৪, ২০২১, ০৪:৪৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ৪, ২০২১, ০৪:৫০ পিএম

টিকটকে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি, যুবক গ্রেপ্তার

টিকটকে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি, যুবক গ্রেপ্তার

টিকটক ভিডিও বানিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপলোড করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির অভিযোগে মো. নূর আলম (২১) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে কক্সবাজারের চকরিয়া থানা পুলিশ। 

সোমবার (৩ মে) বিকেলে চকরিয়ার খুটাখালী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম গর্জনতলীর বাড়ি থেকে পুলিশ ওই যুবককে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তার নূর আলম ওই এলাকার মৃত শামসুল আলমের ছেলে।

এর আগে সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়া ও সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়ার অভিযোগে নূর আলমের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে থানায় একটি মামলা করেন উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সৃজন দে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২২ এপ্রিল মো. নূর আলম তার নিজের ফেসবুক ও একটি ফেসবুক পেজে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। যে ভিডিওতে এক ব্যক্তি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করে হত্যার হুমকি দেন।

এজাহারে আরও বলা হয়, ওই যুবক তার ফেসবুক পেজ থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ তারিখ থেকে ২৫ এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত ৮টি লিংক ব্যবহার করে মিথ্যা, বানোয়াট ও ধর্মীয় উসকানিমূলক ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপলোড করে। এসব ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল করে দেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য সাধারণ ধর্মপ্রাণ মানুষকে উসকানি এবং ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার শামিল। এমনকি তার একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে ইলেকট্রনিক ডিভাইসের মাধ্যমে হত্যার হুমকি, মানহানিকর মিথ্যা তথ্য প্রকাশ করে স্থানীয় বিভিন্ন দল তথা শ্রেণির মানুষের মধ্যে শত্রুতা, ঘৃণা, বিদ্বেষ সৃষ্টিসহ দেশের বিভিন্ন ধর্মের মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছে।

মামলার বাদী চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সৃজন দে জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি ও লাশ গুম করাসহ ওই যুবকের রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ড বর্তমান শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতিতে আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাউছার উদ্দিন কছিরের সাথে পরামর্শ করে এই মামলাটি দায়ের করেছি।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, “ওই যুবকের বানানো টিকটক ভিডিওসহ বিভিন্ন ফেসবুক পোস্ট রাষ্ট্রের নিরাপত্তার জন্য চরম হুমকিস্বরূপ। তাই বিষয়টি নজরে আসায় এবং লিখিত এজাহার পেয়ে প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়ার পর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা নেওয়া হয়েছে। এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে তাকে আদালতে উপস্থাপন করা হবে।”