• ঢাকা
  • বুধবার, ০৫ আগস্ট, ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭
প্রকাশিত: জুলাই ৫, ২০২০, ১০:৫৬ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ৫, ২০২০, ১০:৫৬ এএম

মোবাইল ব্যাংকিং

গ্রাহক বাড়লেও কমেছে লেনদেন

অর্থনীতি প্রতিবেদক
গ্রাহক বাড়লেও কমেছে লেনদেন

করোনা মহামারির এই সময়ে হাতের স্পর্শ এড়াতে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে গ্রাহক বাড়লেও কমেছে লেনদেন। গত এপ্রিলে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে দৈনিক গড়ে লেনদেন হয়েছে ৯৬৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। যা মার্চ মাসের তুলনায় ২৪ দশমিক ৬ শতাংশ কম। মার্চে দৈনিক লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ২৮৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।

সম্প্রতি, বাংলাদেশ ব্যাংকের মোবাইল আর্থিক সেবার হালনাগাদ প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

বর্তমানে ১৫টি ব্যাংক ‘মোবাইল ব্যাংকিং’ করছে। এপ্রিল শেষে তাদের নিবন্ধিত গ্রাহকসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮ কোটি ৫১ লাখ ২৯ হাজার। যা মার্চে ছিল ৮ কোটি ২৫ লাখ ৭৬ হাজার। অর্থাৎ এক মাসে গ্রাহক বেড়েছে ৩ দশমিক ১ শতাংশ। চলতি বছরের এপ্রিল শেষে সক্রিয় গ্রাহকসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৮১ লাখ ৭০ হাজার।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত এপ্রিলে এমএফএসে প্রতিদিন গড়ে ৭২ লাখ ৫২ হাজার ১৬৫টি লেনদেন হয়েছে। এর মাধ্যমে প্রতিদিন গড়ে ৯৬৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা লেনদেন হয়, যা আগের মাসের চেয়ে ২৪ দশমিক ৬ শতাংশ কম। মার্চে দৈনিক লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ২৮৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। এপ্রিলজুড়ে লেনদেন হয়েছে ২৯ হাজার ২৯ কোটি ১৪ লাখ টাকা। মার্চে যা ছিল ৩৯ হাজার ৭৮৫ কোটি ২৩ লাখ টাকা। মার্চের তুলনায় এপ্রিলে টাকার অঙ্কে লেনদেন কমেছে ২৭ শতাংশ। এ সময়ে মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্টের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯ লাখ ৯৫ হাজার ২৬৫ জন।

তথ্য অনুযায়ী, এপ্রিলে মোবাইল ব্যাংকিং হিসাবগুলোয় জমা পড়েছে ৮ হাজার ৭০৯ কোটি টাকা, যা মার্চের চেয়ে ৩৬ দশমিক ৭ শতাংশ কম। আর উত্তোলন হয়েছে ৮ হাজার ২২৭ কোটি টাকা, যা মার্চের চেয়ে ৩৬ দশমিক ৭ শতাংশ কম।

করোনার কারণে সাধারণ ছুটিতে এপ্রিলে ব্যাংকের স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় মোবাইল ব্যাংকিংয়ে বেশি রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। এপ্রিলে এমএফএসে রেমিট্যান্স এসেছে ১১২ কোটি ৩৮ লাখ টাকা, যা মার্চের চেয়ে ২৫৫ শতাংশ বেশি। মার্চে এমএফএসে রেমিট্যান্স আসে ৩১ কোটি ৬৩ লাখ।

কেএপি

আরও পড়ুন