• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ১, ২০২১, ০৯:৫৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১, ২০২১, ০৯:৫৭ পিএম

গুচ্ছভর্তিতে মিনিটে আবেদন ১৫৫ 

গুচ্ছভর্তিতে মিনিটে আবেদন ১৫৫ 

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু প্রতি মিনিটে ১৫৫টি করে প্রাথমিক আবেদন জমা পড়ছে।

বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির নগর কার্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে চলতি শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা বিষয়ে সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি (জিএসটি) বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর টেকনিক্যাল সাব কমিটির ৫ম সভায় ভর্তি আবেদনের জন্য ওয়েবসাইট উদ্বোধন করা হয়।

দুপুর ১২টায় অনলাইনে www.gstadmission.ac.bd এ আবেদন শুরুর পর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত প্রায় ৬০ হাজার আবেদন জমা পড়েছে। সেই হিসাবে প্রতি মিনিটে ১৫৫ জন শিক্ষার্থী প্রাথমিক আবেদন করেছেন। আগামী ১৫ এপ্রিল রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত আবেদন প্রক্রিয়া চলবে।

দেশের ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছ পদ্ধতিতে স্নাতক শ্রেণিতে প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার নিবে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ও গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা বিষয়ক টেকনিক্যাল সাব-কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর বলেন, “অনলাইন আবেদন শুরু হওয়ার পর ওয়েবসাইটে তেমন কোনো ধরনের সমস্যা সৃষ্টি হয়নি। ভর্তিচ্ছুকরা স্বতঃস্ফুর্তভাবে প্রাথমিক আবেদন করছেন। দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত প্রায় ৬০ হাজার আবেদন জমা পড়েছে।”


টেকনিক্যাল সাব কমিটির সভায় সভাপতিত্ব করেন ড. মুনাজ আহমেদ নূর। এসময় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এই ওয়েবসাইট উদ্বোধন করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

এছাড়াও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আহসান-উল-আম্বিয়া, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট মুহাম্মদ শাহীনূল কবীর, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসিস্ট্যান্ট নেটওয়ার্ক ইঞ্জিনিয়ার মেরাজ আলী, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক খাদেমুল ইসলাম, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মো. সাফিউজ্জামান, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রোগ্রামার মো. মানিক আহমেদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোগ্রামার মো. হাফিজুর রহমান প্রমুখ সভায় উপস্থিত ছিলেন।