• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৬ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৩, ২০২০, ০১:৫২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২৩, ২০২০, ০১:৫২ পিএম

ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীকে সাহায্য করতেই ইভিএম: মির্জা ফখরুল

জাগরণ প্রতিবেদক
ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীকে সাহায্য করতেই ইভিএম: মির্জা ফখরুল

ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীকে সাহায্য করার জন্যই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) নিয়ে আসা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

তিনি বলেন, ইভিএমের বিষয়টা পুরোপুরি নির্বাচন কমিশনের। এতে অন্য কারো কোন এখতিয়ার নাই। নির্বাচন কমিশন তাদের অযোগ্যতায় ঢাকার জন্য ইভিএম নিয়ে আসছে। ক্ষমতাসীন দলকে সাহায্য করার জন্যই কমিশন ইভিএম নিয়ে আসছে। আমরা বলেছি, প্রয়োজনে নির্বাচন পিছিয়ে দিয়ে ব্যালটের মাধ্যমে নির্বাচন পরিচালনা করা হোক।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্ট মাজার এলাকায় ঢাকা দক্ষিণের বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেনের প্রচারণায় অংশ নিয়ে এক পথসভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন তিনি।

ইশরাক হোসেনকে ধানের শীষে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ঢাকাবাসীর প্রতি আমার একটা আকুল আবেদন থাকবে তরুণ উদ্দীপ্ত নেতা ইশরাক হোসেনকে ধানের শীষে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ত্বরান্বিত করুন। ঢাকাবাসী তাদেরই ভোট দিয়ে মেয়র নির্বাচন করবেন যারা ঢাকার উন্নয়নে ঢাকাকে পরিবর্তনের জন্য কাজ করবেন। তাই আমরা মনে করি ইতোমধ্যেই ইশরাক হোসেন ঢাকাসহ সারাদেশে তার মেধা, সাহসী বক্তব্য এবং সাহসী পদক্ষেপে প্রমাণ করেছেন। আর তিনিই একমাত্র নেতা যিনি আগামীতে ঢাকাকে নেতৃত্ব দিতে পারেন মেয়র হিসেবে।

দিনের বেলা উৎসবমুখর পরিবেশ থাকে কিন্তু রাতের বেলা কি উৎসবমুখর ছাপিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে কোন আতঙ্ক সৃষ্টি হয় কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে বিএনপি মহাসচিব বলেন, অবশ্যই আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। গত পরশুদিন উত্তরের মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়ালের প্রচারণায় হামলা চালানো হয়েছে। ধানের শীষের কর্মীদের আহত করা হয়েছে, নির্যাতন করা হয়েছে, বাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। কাউন্সিলরদের মারধর করা হচ্ছে। দক্ষিণের একজন কাউন্সিলরকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, তিনদিন পর তাকে পাওয়া গেছে। আমি বলি এই সরকার একটা সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য কোন পরিবেশ তৈরি করতে পারেনি। আর নির্বাচন কমিশনও নির্বাচনের জন্য সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরি করতে পারেনি।

টিএস/এমএইচবি