• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: মে ১৬, ২০১৯, ০৬:২৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৬, ২০১৯, ০৬:২৭ পিএম

দেশে ব্যাঙের আবাসস্থল ব্যাপকহারে ধ্বংস হচ্ছে 

জাগরণ প্রতিবেদক
দেশে ব্যাঙের আবাসস্থল ব্যাপকহারে ধ্বংস হচ্ছে 

 

দেশে ব্যাঙের সবচেয়ে বড় হুমকি হচ্ছে ব্যাপকহারে আবাসস্থল ধ্বংস, প্রাকৃতিক পরিবেশের রূপান্তর। মানুষ নিজেদের প্রয়োজনে কৃষিকাজ, রাস্তাঘাট, কলকারখানা, বসতির জন্য প্রাকৃতিক বিভিন্ন বন-জঙ্গল এবং জলাশয় ধ্বংস করছে। উপযুক্ত জলীয় পরিবেশ না পেলে ব্যাঙের প্রজনন ব্যাহত হয়। আর প্রকৃতিতে ব্যাঙ না বেঁচে থাকলে খাদ্যশৃঙ্খল ভেঙে পড়বে।  

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) ‘বিশ্ব ব্যাঙ দিবস’ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় বিশেষজ্ঞরা এসব কথা বলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগ ও বাংলাদেশ প্রাণিবিজ্ঞান সমিতির যৌথ আয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের মিলনায়ানে এ সভা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন- জীব বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মো ইমদাদুল হক। বক্তব্য রাখেন- অধ্যাপক ড. গুলশান আরা লতিফা, অধ্যাপক ড. নূর জাহান সরকার, প্রফেসর হুমায়ুন রেজা খান, প্রফেসর ড. নিয়ামুল নাসের, প্রফেসর আনোয়ারুল ইসলাম, আলিফা বিনতে হক, অধ্যাপক মো. মোকলেসুর রহমান, মাহাবুব আলম ও মুনতাসির আকাশ।

আলোচনায় বিশেষজ্ঞরা বলেন, কলকারখানার বর্জ্য, বসতবাড়িতে ব্যবহার্য বর্জ্য পানিতে ফেললে পানি দূষিত হচ্ছে। এর ফলে ব্যাঙের পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কেননা উপযুক্ত জলীয় পরিবেশ না পেলে ব্যাঙের প্রজনন ব্যাহত হয়। তারা বিপন্ন ব্যাঙ সংরক্ষণে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। 

বক্তারা আরো বলেন, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় ব্যাঙের গুরুত্বপূর্ণ অবদান আছে। একটি প্রাপ্তবয়স্ক ব্যাঙ তার দেহের ওজনের ১০ গুণ খাবার খেতে পারে। এরা ফসলের ক্ষেতের ক্ষতিকর পোকামাকড় খেয়ে কৃষকের উপকার করে, যার ফলে কীটনাশকমুক্ত ভাবে ফসল উৎপাদন সম্ভব হয়। এ ছাড়া মশা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে ব্যাঙের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। ছত্রাক ও ভাইরাস বাহিত রোগের আক্রমনের পৃথিবীর এক তৃতীয়াংশ ব্যাঙ আক্রান্ত ও মারা যাচ্ছে। এতে করে অচিরেই অনেক প্রজাতির ব্যাঙ বিলপ্ত হওয়ার আশঙ্কা আছে।  জল ও স্থল উভয় স্থানে বাসকারী প্রাণি মূলত উভচর প্রাণি নামে পরিচিত। আর উভচর প্রাণি হিসাবে সব থেকে বেশি পরিচিত ব্যাঙ। প্রাণি ভৌগলিক অঞ্চলের দিক দিয়ে বাংলাদেশ ওরিয়েন্টাল অঞ্চলের ইন্দো-হিমালয়ান ও  ইন্দো-চাইনিজ অঞ্চলের সন্ধিস্থল এ অবস্থিত হওয়ার কারণে এক সমৃদ্ধ জীব বৈচিত্র্যের অধিকারী বাংলাদেশ। এছাড়া, ইন্দো-বার্মা হটস্পটের কারণে বিভিন্ন ধরনের বিরল সব বন্য প্রাণির বসবাস এদেশে।

টিএস/টিএফ

Space for Advertisement