• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২০, ০৯:১৩ এএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২০, ০৯:১৫ এএম

করোনাভাইরাস

৬৩৮ নাকি ২৫ হাজার? মৃতের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
৬৩৮ নাকি ২৫ হাজার? মৃতের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন

মারণ ভাইরাসে চীনে মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ৬৩৮। বেজিং সরকার তাই বলছে। যদিও কানাঘুঁষো খবর, সত্যিটা চেপে দিচ্ছে কমিউনিস্ট পার্টি। মৃতের সংখ্যা ২৫ হাজারের কাছাকাছি। সংক্রমিত অন্তত দেড় লাখ। মারণ ভাইরাসটি প্রথম নজরে এসেছিল যে চিকিৎসকের, তিনিও মারা গেছেন।

সন্দেহ জোরদার হয়েছে একটি চীনা সংস্থার রিপোর্টে। তাদের দাবি, নোভেল করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২৪ হাজার ৫৮৯ জনের। সরকারের বলা ‘সাড়ে পাঁচশো’র থেকে বহুগুণ বেশি।

তাইওয়ানের একটি সংস্থার কথায়, টেনসেন্ট নামে ওই সংস্থাটি অনিচ্ছাকৃতভাবে হলেও আসল মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা প্রকাশ করে ফেলেছে।

তাদের ওয়েবপেজে জানানো হয়, সংক্রমণের পরে সুস্থ হয়েছেন মাত্র ২৬৯ জন। অনেকে এখনও বিশ্বাস করছেন, টেনসেন্ট ভুল করে তাদের রিপোর্টে ওই সংখ্যাটি লিখেছে। যদিও একাংশের মতে, তারা হয়তো বাস্তব পরিস্থিতিটাকে প্রকাশ্যে আনতে চাইছে। টেনসেন্ট এখনও বিষয়টি নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি। 

চীন জানায়, তাদের দেশে রয়েছে এমন ১৯ জন বিদেশির শরীরে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঘটেছে। তারা কোনও দেশের বাসিন্দা, প্রকাশ করা হয়নি। বুধবার (৫ ফেব্রুয়ারি) ৭৩ জন মারা গিয়েছেন। একদিনে এতো মৃত্যু এর আগে হয়নি।

ভারতসহ একাধিক রাষ্ট্র নিজেদের দেশের বাসিন্দাদের চীন থেকে এয়ারলিফ্ট করে নিয়ে এসেছে। ভারত নিজেদের ৬৪৫ জনকে উদ্ধার করেছে। কিন্তু এখনও ১০০ জন ভারতীয় হুবেই প্রদেশে রয়েছে। তাদের মধ্যে ১০ জনকে আনা যায়নি, কারণ প্রবল জ্বর ছিল তাদের। ফলে চীনের ঘোষণায় আশঙ্কা দানা বেঁধেছে। আক্রান্ত ১৯ জন বিদেশির মধ্যে কি তবে কোনও ভারতীয়ও রয়েছে? 

চীনের এই পরিস্থিতিতে এয়ার ফ্রান্স-কেএলএম জানায়, চীনে বিমান পরিষেবা ১৫ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। এয়ার ইন্ডিয়া, ইন্ডিগোসহ একাধিক ভারতীয় উড়ান সংস্থাও চীনের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ রেখেছে। আনন্দবাজার।  

এসএমএম