• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ২১, ২০১৯, ০৬:৪৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ২২, ২০১৯, ০৫:৩০ পিএম

শ্রীলঙ্কা বোমা বিস্ফোরণ

জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার ৭: লঙ্কান প্রতিরক্ষা মন্ত্রী   

জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার ৭: লঙ্কান প্রতিরক্ষা মন্ত্রী   
শ্রীলঙ্কার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রুয়ান বিজয়বর্ধনে

শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ সিরিজ বিস্ফোরণে দেড় শতাধিক মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এরইমধ্যে ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে দেশটির নিরাপত্তারক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

রোববার (২১ এপ্রিল) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা দেয়া এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রুয়ান বিজয়বর্ধনে। লঙ্কান সানডে টাইমস

মন্ত্রী বিজয়বর্ধনে বলেন, এই দেশকে এবং দেশের জনগণকে নিরাপদ রাখতে আমরা প্রয়োজনীয় সব ধরনের সতর্কতা অবলম্বন করেছি। এরইমধ্যে দুর্ভাগ্যজনক এই সন্ত্রাসী হামলায় জড়িত সন্দেহে ৭ জনকে আটক করা হয়েছে।

এদিকে ভয়াবহ এই সিরিজ বিস্ফোরণের ঘটনায় শ্রীলঙ্কায় অনির্দিষ্টকালের কারফিউ জারি করা হয়েছে। দেশটির প্রেসিডেন্সিয়াল সেক্রেটারিয়েট থেকে রোববার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী দিন সকাল ৬টা পর্যন্ত কিরফিউয়ের ঘোষণা আসলেও পরে তা অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কান পুলিশের মহাপরিদর্শক পূজীৎ সুন্দরা।

জড়িতদের প্রসঙ্গে কলম্বোতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী জানিয়েছেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত কারফিউ জারি থাকবে। উত্তেজনা ও গুজব ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে জনপ্রিয় সব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। দুই দিনের জন্য সব স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

অপরদিকে দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপসহ গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও বার্তা পাঠানোর অ্যাপস দেশটিতে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে যাতে করে ভুল তথ্য ও গুজব ছড়ানো না যায়।

রোববার খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ইস্টার সানডে উদযাপনকালে রাজধানী কলম্বো ও তার আশেপাশের তিনটি গির্জা, তিনটি হোটেল, চিড়িয়াখানা ও একটি আবাসিক এলাকাসহ মোট আটটি স্থানে এই সিরিজ বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। ভয়াবহ সিরিজ বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৮৮ জনে দাঁড়িয়েছে। আহতের সংখ্যা ইতোমধ্যেই ৫০০ ছাড়িয়েছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।  

এ ঘটনায় হতাহতদের মধ্যে ৩৫ বিদেশি রয়েছেন বলে জানা গেছে, যাদের ১১ জন পর্যটক হিসেবে সেখানে অবস্থান করছিলেন । তবে এখন পর্যন্ত কোনও গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেনি।

সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের দেশ শ্রীলঙ্কার মাত্র ছয় শতাংশ মানুষ ক্যাথলিক খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী। দেশটির দুই নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী তামিল ও সিংহলিজ উভয়ের মধ্যেই এই ধর্মাবলম্বীদের উপস্থিতি রয়েছে।

এসকে