• ঢাকা
  • বুধবার, ০৪ আগস্ট, ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮
প্রকাশিত: জুন ২০, ২০২১, ০৩:২৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ২০, ২০২১, ০৯:২৭ এএম

পাকিস্তানে মার্কিন সামরিক ঘাঁটি নয় : ইমরান খান

পাকিস্তানে মার্কিন সামরিক ঘাঁটি নয় : ইমরান খান
ইমরান খান - ফাইল ছবি

পাকিস্তানে মার্কিন সামরিক ঘাঁটি স্থাপনের অনুমতি দেওয়া হবে না। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এক সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে স্পষ্টভাবে এ কথা বলেছেন।

মার্কিন সংবাদ ওয়েবসাইট এইচবিও অ্যাক্সিওসে সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন ইমরান খান। সেখানে সাংবাদিক জোনাথন সোয়ান তাকে প্রশ্ন করেছিলেন- আল কায়দা, আইএস এবং তালেবানদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের অংশ হিসেবে যদি যুক্তরাষ্ট্র পাকিস্তানে সামরিক ঘাঁটি করতে চায়, সেক্ষেত্রে পাকিস্তান সরকার তার অনুমতি দেবে কি না।

উত্তরে ইমরান খান বলেন, একদমই নয়। আফগানিস্তানে অভিযান চালানোর জন্য পাকিস্তানের সীমানা ব্যবহার আমরা কখনও সমর্থন করব না। এটা একেবারেই সম্ভব নয়।

এদিকে, বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ইমরানের এই বক্তব্য প্রকাশের পরে তাকে স্বাগত জানিয়েছে আফগানিস্তানের কট্টরপন্থি ইসলামিগোষ্ঠী তালেবান। শুক্রবার কাতারের রাজধানী দোহা থেকে তালেবান মুখপাত্র সোহেল শাহীন এ বিষয়ে পাকিস্তানের জাতীয় দৈনিক দ্য ডনকে বলেন, ‘আমরা পাকিস্তানের সরকারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাচ্ছি। পাকিস্তানে সামরিক ঘাঁটি স্থাপনের যে প্রস্তাব যুক্তরাষ্ট্র দিয়েছে তা অন্যায্য ছিল এবং পাকিস্তান তার উপযুক্ত জবাব দিয়েছে।’

১৯৯৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে টুইন টাওয়ারে হামলার পর থেকে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। এর অংশ হিসেবে ২০০১ সালে আফগানিস্তানে অভিযান চালানো শুরু করে দেশটির সেনাবাহিনী।

সে সময় আফগানিস্তানের ক্ষমতায় ছিল তালেবান সরকার । অভিযানে তালেবানদের পতন হয়। কিন্তু তার কয়েক বছর পর থেকে ফের শক্তিশালী হওয়া শুরু করে আফগানিস্তানভিত্তিক এই কট্টরপন্থি ইসলামিগোষ্ঠী।

সম্প্রতি দেশটি থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নিয়েছে বাইডেন প্রশাসন। পাশপাশি, সেখানে স্থায়ী যুদ্ধবিরতি এবং সরকার ব্যবস্থায় তালেবানদের অন্তর্ভুক্তির বিষয় নিয়েও আলোচনা চলছে কাতারের রাজধানী দোহায়।

কিন্তু চলমান এই আলোচনার মধ্যেই  চোরাগুপ্তা হামলা ক্রমশ বাড়ছে আফগানিস্তানে। মূলত সরকারি কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও অধিকারকর্মীদের লক্ষ্য করেই হামলাগুলো করা হচ্ছে এবং রাজনীতি বিশ্লেষকরা বলছেন, দেশের ওপর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ আনতে পরিকল্পিতভাবে এই হামলাগুলো ‍চালাচ্ছে তালেবানগোষ্ঠী।

এই পরিস্থিতিতে দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে তালেবান-আলকায়দা ও আইএস এর গতিবিধির ওপর নজর রাখতে এলাকায় একটি নতুন সামরিক ঘাঁটি স্থাপনের প্রয়োজন বোধ করছে যুক্তরাষ্ট্র। এ ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর প্রথম পছন্দ পাকিস্তান। মার্কিন দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন সরকারের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রাহী।

কিন্তু, সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে মার্কিন সরকারের এই পরিকল্পনায় ‍দৃশ্যত পানি ঢেলে দিলেন ইমরান খান। এর আগে মন্ত্রীসভার এক বৈঠকে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি এবং তথ্যমন্ত্রী চৌধুরি ফাওয়াদ হাসানও পাকিস্তানে মার্কিন সামরিক ঘাঁটি স্থাপনের প্রস্তাবে আপত্তি জানিয়েছিলেন।

জাগরণ/এসকে