• ঢাকা
  • বুধবার, ০৩ জুন, ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
প্রকাশিত: এপ্রিল ৮, ২০২০, ০১:২৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ৮, ২০২০, ০১:২৩ পিএম

খুনি মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি যে কোনও সময়

জাগরণ প্রতিবেদক
খুনি মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি যে কোনও সময়
বঙ্গবন্ধুর খুনি আবদুল মাজেদ ● সংগৃহীত

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সংশ্লিষ্ট জেলা জজ আদালত বসেছে, যে কোনও সময় ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি হতে পারে।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) গুলশানের আবাসিক অফিস থেকে একটি ভিডিও বার্তায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, আবদুল মাজেদের বিরুদ্ধে রায় কার্যকর করার জন্য আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়ে গেছে। আনুষ্ঠানিকতা শেষ হলেই এই রায় কার্যকর করা হবে।

তিনি বলেন, মাজেদ কারাগারে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি সৃষ্টি করতে পারেন কি-না, এমন প্রশ্ন আমার কাছে এসেছে। আবদুল মাজেদকে মিরপুর সাড়ে ১১ নম্বর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি ফাঁসির দণ্ডে দণ্ডিত একজন আসামি। ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের কারাগারে সলিটারি কনফাইনমেন্টে (পৃথক সেল) রাখা হয়। আবদুল মাজেদ সলিটারি কনফাইনমেন্টে থাকবে। এ হিসেবে তিনি করোনাভাইরাস ছড়ানোর কোনও ঝুঁকি সৃষ্টি করবেন না।

আইনমন্ত্রী বলেন, আবদুল মাজেদ বঙ্গবন্ধু হত্যার ষড়যন্ত্র এবং হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য-প্রমাণ পাওয়ার পর বিচারিক আদালত এবং আপিল আদালত তাকে ফাঁসির দণ্ড দেন।

মাজেদ বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনিদের ১১ জনের একজন। যাদের পাঁচজনকে ২০১০ সালে সর্বোচ্চ আদালতের রায়ে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। মাজেদসহ ৬ খুনি ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকেই পলাতক ছিলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বরখাস্ত হওয়া ক্যাপ্টেন আবদুল মাজেদকে ২৩ বছর পর সোমবার (৬ এপ্রিল) দিবাগত রাতে মিরপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) দুপুর পৌনে ১টায় মাজেদকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে হাজির করে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক।

এসএমএম