• ঢাকা
  • সোমবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০, ০৩:৩৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০, ০৩:৩৩ পিএম

পাপিয়া দম্পতির যাবজ্জীবন চায় রাষ্ট্রপক্ষ

জাগরণ ডেস্ক
পাপিয়া দম্পতির যাবজ্জীবন চায় রাষ্ট্রপক্ষ
শামীমা নূর পাপিয়া ও তাঁর স্বামী মফিজুর রহমান সুমন। ফাইল ছবি

অস্ত্র আইনের মামলায় যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়া ও তাঁর স্বামী মফিজুর রহমান সুমনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চায় রাষ্ট্রপক্ষ।

ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে  রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তি উপস্থাপনের সময় আজ বৃহস্পতিবার এ প্রত্যাশা করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী তাপস কুমার পাল।

এ বিষয়ে আদালতের সরকারি কৌঁসুলি তাপস কুমার পাল বলেন, এ মামলায় আজ যুক্তিতর্কের দিন ধার্য ছিল। পাপিয়া ও তাঁর স্বামীকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। এরপর তাঁদের উপস্থিতিতে অভিযোগ গঠনের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

পিপি বলেন, রাষ্ট্রপক্ষ  থেকে পাপিয়ার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য-প্রমাণ দিয়ে অভিযোগ প্রমাণে সক্ষম হওয়ায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড চাওয়া হয়েছে। অপরদিকে আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক শেষ না হওয়ায় বিচারক আগামী রোববার অবশিষ্ট যুক্তিতর্কের দিন নির্ধারণ করেছেন।

তাপস কুমার পাল আরও বলেন, এ মামলায় পাপিয়াদের বিরুদ্ধে মোট ১২ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, গত ২২ ফেব্রুয়ারি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে নয়াদিল্লি যাওয়ার সময় বহির্গমন গেট থেকে পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান (৩৮) ও ব্যক্তিগত সহকারী সাব্বির খন্দকারকে (২৯) গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর তাঁদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, হোটেল ওয়েস্টিন থেকে পাপিয়া ও তাঁর ব্যক্তিগত সহকারী শেখ তায়্যিবাকে (২২) গ্রেপ্তার করা হয়।

পরের দিন ২৩ ফেব্রুয়ারি দুপুরে পাপিয়ার ফার্মগেটের বাসা থেকে অস্ত্র, মদসহ বিপুল অবৈধ টাকা ও একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি পিস্তলের ম্যাগাজিন, ২০টি পিস্তলের গুলি, পাঁচ বোতল বিদেশি মদ ও ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় পাপিয়া, তাঁর স্বামী ও দুই সহযোগীর বিরুদ্ধে তিনটি মামলা করা হয়। মামলার পর তাঁদের বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নেওয়া হয়। তাঁরা এখন কারাগারে আটক রয়েছেন।

জাগরণ/এমএইচ

আরও পড়ুন