• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮
প্রকাশিত: জুন ৬, ২০২১, ০৭:২১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ৬, ২০২১, ০৭:৪০ পিএম

ভয়াবহ অপরাধে জড়িত ছিল ‘ডেয়ারিং কোম্পানি’র সদস্যরা!

ভয়াবহ অপরাধে জড়িত ছিল ‘ডেয়ারিং কোম্পানি’র সদস্যরা!

গাজীপুরের টঙ্গীতে দুই পরিবারের সদস্যদের নৃশংস হামলার সঙ্গে জড়িত কিশোর গ্যাং ‘ডি কোম্পানি’ ওরফে ‘ডেয়ারিং কোম্পানি’র পৃষ্ঠপোষক রাজিব চৌধুরী বাপ্পি ওরফে লন্ডন বাপ্পি ও মইন আহমেদ নীরব ওরফে ডন নীরবসহ ১২ জনকে আটক করেছে র‌্যাব।

রোববার (৬ জুন) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান বাহিনীটির আইন ও গণমাধ্যম শাখার কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

র‌্যাব জানায়, শনিবার (৫ জুন) সারারাত গাজীপুরের টঙ্গী ও রাজধানীর উত্তরার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ‘ডি কোম্পানি’ ওরফে ‘ডেয়ারিং কোম্পানি’র ১২ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন— গাজীপুরের আব্দুল মালেকের ছেলে মো. রাজিব চৌধুরী বাপ্পি ওরফে লন্ডন বাপ্পি (৩৫), চাঁদপুরের বোরহান উদ্দিনের ছেলে মো. মইন আহমেদ নীরব ওরফে ডন নীরব (২৪), একই জেলার মো. ইসমাইল হোসেনের ছেলে মো. তানভীর হোসেন ওরফে ব্যাটারি তানভীর (২৪), ময়মনসিংহ জেলার মো. ওসমান গনির ছেলে মো. পারভেজ ওরফে ছোট পারভেজ (১৯), বরিশাল জেলার মো. শাহ আলমের ছেলে মো. তুহিন ওরফে তারকাঁটা তুহিন (২১), খুলনা জেলার মো. আলমগীর হোসেনের ছেলে মো. রাজিব আহমেদ নীরব ওরফে টম নীরব (৩০), গাজীপুর জেলার মো. শাহ আলমের ছেলে মো. সাইফুল ইসলাম শাওন (২৩), ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার হোসেন আলীর ছেলে মো. রবিউল হাসান (২০), গাজীপুর জেলার মো. সামছুল আলমের চেলে মো. শাকিল ওরফে বাঘা শাকিল (২৮), একই জেলার মৃত আব্দুল ছাত্তারের ছেলে মো. ইয়াছিন আরাফাত ওরফে বিস্কুট ইয়াছিন (১৮), ইদ্রিস আলীর ছেলে মো. মাহফুজুর রহমান ফাহিম (২২) ও ময়মনসিংহ জেলার মো. শাহাজাহান মিয়ার ছেলে ইয়াছিন মিয়া ওরফে প্রিন্স ইয়াছিন (১৯)।

তাদের কাছ থেকে ১২টি মোবাইল ফোন ও নগদ ছয় হাজার ১৩০ টাকা জব্দ করা হয়। পরবর্তীকালে তাদের দেওয়া তথ্যে বাপ্পীর আস্তানায় অভিযান চালিয়ে ২টি বিদেশি পিস্তল, ২টি চাপাতি, ২টি রামদা, ৩টি লোহার রড এবং ১টি ছুরি উদ্ধার করা হয় বলে জানায় র‌্যাব।

ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, গ্রেপ্তার মো. রাজিব চৌধুরী বাপ্পি ওরফে লন্ডন বাপ্পি এই ‘ডি কোম্পানি’র পৃষ্ঠপোষক এবং মো. মইন আহমেদ নীরব ওরফে ডন নীরব মাঠ পর্যায়ে নেতৃত্ব দিত।

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন আরও জানান, গত মঙ্গলবার (১ জুন) গাজীপুরের টঙ্গী পূর্ব থানাধীন আরিচপুরের ভূঁইয়া পাড়া জামে মসজিদ এলাকায় মো. তুহিন আহম্মেদ এবং তুষার আহম্মেদ নামের দুই ব্যক্তিকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ‘ডি কোম্পানি’র সদস্যরা। এই ঘটনায় পরদিন ভুক্তভোগীরা টঙ্গী পূর্ব থানায় কিশোর গ্যাংটির সদস্যদের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। এই কারণে তারা ওইদিন মামলার বাদীর বাড়িঘরে এবং দোকানপাটে ব্যাপক হামলা ও ভাঙচুর করে।

র‌্যাবের এই পরিচালক আরও জানান, এই কিশোর গ্যাংয়ের কয়েকজন সদস্য গত বৃহস্পতিবার (৩ জুন) টঙ্গী পূর্ব থানাধীন আরিচপুর এলাকার একটি দর্জির দোকানেও ভাঙচুর চালায়। এই সময় তারা ওই এলাকার আব্দুল মালেকের ছেলে আরজু মিয়া (৩৪) ও সুজন মিয়া (২৪) এবং সুজনের স্ত্রী রুপালীকে (২১) পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে।

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার আসামিরা এই দুই হামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এছাড়া তারা মাদক সেবন, চাঁদাবাজি, ডাকাতি, ছিনতাই, ইভটিজিং, র‌্যাগিং, বুলিং, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অশ্লীল ভিডিও শেয়ারসহ নানা অনৈতিক কাজেও লিপ্ত ছিল বলে জানিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।